বিয়ের আগেই সন্তানসম্ভবা, ব্যাক্তিগত জীবন থেকে সিনেমা জগত জানুন কতোটা খোলামেলা কঙ্কনা সেনশর্মা

আজ ৪১ এ পা দিলেন আমাদের সবার প্রিয় বাঙালী অভিনেত্রী কঙ্কনা সেনশর্মা। কঙ্কনা খালি মনে প্রাণে আর নামেই বাঙালী নন। বলিউডের পাশাপাশি তিনি অনেক বাংলা ছবি আমাদের উপহার দিয়েছেন। আজ তার ৪১তম জন্মদিনে তার সকল অনুগামীদের জন্য রইল কঙ্কনার জীবনের জানা অজানা নানা খুটিনাটি তথ্য। ছোট থেকে মা অপর্ণা সেনের সাথে ছবির সূত্রে তিনি দেশে বিদেশে যেতেন। এরপর মার হাত ধরেই তিনি সিনেমা জগতে আসেন। ‘লাইফ ইন আ মেট্রো’, ‘ট্র্যাফিক সিগন্যাল’, ‘লাগা চুনরি মে দাগ’, ‘আজা নাচলে’, ‘ফ্যাশন’, ‘ওয়েক আপ সিড’, ‘সাত খুন মাফ’, ‘লিপস্টিক আন্ডার মাই তিনি বোরখা’ ছাড়াও অনেক ছবিতে আমাদের নজর কেড়েছেন।

২০১০ সালে অভিনেতা রণভীর শোরেকে বিয়ে করেছিলেন কঙ্কনা। ২০১১ সালে তার কোলে আসে প্রথম পুত্র সন্তান হারুন। বিয়ের আগেই তিনি সন্তান সম্ভবা হওয়ার কারণে তাকে অনেক কথাই শুনতে হয়েছিল বটে। কিন্তু সেসব ঝেড়ে মুছে তিনি আজ বহু দূরে। বিয়ের বেশ কয়েক বছরের মধ্যেই তার স্বামী রনভীরের সাথে দূরত্ব বাড়তে থাকে কঙ্কনার। এরপর ২০১৫ সাল থেকে দুজন আলাদা থাকা সিদ্ধান্ত নেন। পরে ২০২০ সালের অগস্ট মাসে আইনত বিবাহবিচ্ছেদ হয় কঙ্কনা এবং রনভীরের।

পেজ থ্রি ছবির মাদ্যমেই কঙ্কনা প্রথমে বলিঊডে পা রাখেন। পরে তিনি ‘ওমকারা’ ছবিতেও অভিনয় করে সেরা সহায়ক অভিনেত্রীর জন্য ফিল্মফেয়ার এবং জাতীয় চলচ্চিত্র পুরষ্কারেও ভূষিত হন। হিন্দি ছবি ছাড়াও তিনি বেশ কয়েকটা বাংলা ছবি যেমন ‘ইতি মৃণালিনী’ এবং ‘গয়নার বাক্স’ তেও অভিনয় করেন। মা অপর্ণা সেন পরিচালিত ছবি ‘মিস্টার ও মিসেস আইয়ার’-এ মীনাক্ষী আইয়ারের ভূমিকায় অভিনয়ের জন্যে সেরা অভিনেত্রীর জাতীয় পুরস্কারও পেয়েছিলেন।কঙ্কনার ঝুলিতে রয়েছে একাধিক ভাল ছবি ও পুরস্কার। তথাকথিত কমার্শিয়াল ছবির থেকে একটু অন্য ধারার ছবিতে কাজ করতে পছন্দ করেন তিনি। ছোটবেলা থেকেই মা অপর্ণা সেনের সঙ্গে যেতেন বিদেশের বিভিন্ন ফিল্ম সোসাইটিতে। চলচ্চিত্রের মহলেই বেড়ে ওঠা ছোটবেলা থেকে।

Comments
Loading...