বাম-কংগ্রেস জোট: ২৩০ আসনে বোঝাপড়া শেষ, আব্বাসকে সঙ্গে রাখতে উদ্যোগ বিমান বসুর

অন্তিম লগ্নে এসে পৌঁছেছে বাম-কংগ্রেস আসন বোঝাপড়া। প্রথমে আসন সংখ্যা নিয়ে সমঝোতায় পৌঁছোয় দুই পক্ষ। তারপর শুরু হয় আসন ধরে ধরে পর্যালোচনা। সূত্রের খবর ২৩০ টির মতো আসনে বোঝাপড়া শেষ। বাকি ৬৪ আসনে বোঝাপড়া ফেব্রুয়ারির ১৫ তারিখের মধ্যে শেষ করে ফেলতে চায় বাম-কংগ্রেস। 

রবিবার আলিমুদ্দিন স্ট্রিটের বৈঠকে হাজির হয়েছিলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী, বিধানসভায় বিরোধী দলনেতা  আব্দুল মান্নান, কংগ্রেস সাংসদ প্রদীপ ভট্টাচার্য, বিধায়ক মনোজ চক্রবর্তী। সিপিএমের পক্ষে ছিলেন রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র, পলিটব্যুরো সদস্য বিমান বসু। 

সূত্রের খবর, রবিবাসরীয় বৈঠকে সৌহার্দপূর্ণ পরিবেশে আসন নিয়ে পারস্পরিক মত বিনিময় করেছেন দুই দলের নেতারা। ২৩০ টি আসন ধরে ধরে পর্যালোচনা হয়েছে। তবে এর মধ্যে কিছু আসন অদলবদল হতে পারে। বাকি ৬৪ টি আসনে বোঝাপড়া সামনের সপ্তাহের মধ্যে সেরে ফেলতে চাইছে দুই দল। 

এর মধ্যেই আলোচনা হয় আব্বাস সিদ্দিকির আইএসএফকে নিয়ে। আব্বাস সিপিএম তথা বামফ্রন্টকে লিখিত ভাবে প্রস্তাব দিলেও কংগ্রেসের কাছে তেমন কোনও লিখিত প্রস্তাব আসেনি। এই অবস্থায় বিমান বসু বলেন, আমরা চাই আইএসএফের সঙ্গে বোঝাপড়ায় যেতে। কিন্তু আমাদের কাছে আনুষ্ঠানিক প্রস্তাব এলেও কংগ্রেসকে এখনও প্রস্তাব দেয়নি আব্বাস। বাম ও কংগ্রেসের বোঝাপড়ায় কোনওরকম ক্ষতি না করে আইএসএফ বাস্তবতার ভিত্তিতে আসন ছাড়া হতে পারে। সূত্রের খবর, বামেরা আব্বাসকে কিছু আসন ছাড়তে রাজি আছে, তবে কোনও ভাবেই তা ৪৪ টি আসন নয়। আব্বাস আনুষ্ঠানিক ভাবে কংগ্রেসকে প্রস্তাব দিলে তারা ভেবে দেখবে আসন ছাড়ার বিষয়টি। 

সিপিআইএমএল লিবারেশন বাম জোটে থাকছে না, সে কথা সাংবাদিক বৈঠক করে জানিয়ে দিয়েছেন দীপঙ্কর ভট্টাচার্য। ১২ টি আসনে তাঁরা প্রার্থী দেবে বলেও জানিয়ে দিয়েছে। ফলে বাম-কংগ্রেস জোটে তাদের আসন ছাড়ার প্রশ্ন নেই। তবে বাস্তবতার ভিত্তিতে দীপঙ্কর ভট্টাচার্যের দল সিপিএমকে সমর্থন দিতে পারে। ঠিক তেমনই প্রার্থী সাপেক্ষে তৃণমূলকেও নৈতিক সমর্থন দিতে পারে সিপিআইএমএল লিবারেশন। 

সবমিলিয়ে মসৃণ ভাবেই এগোচ্ছে বাম-কংগ্রেস জোট প্রক্রিয়া।

Comments
Loading...