মাধ্যমিকে টোকাটুকি রুখতে কড়া সিদ্ধান্ত রাজ্যের, বন্ধ থাকতে পারে ইন্টারনেট পরিষেবা

মাধ্যমিক পরীক্ষা চলাকালীন প্রয়োজনে ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ করে দিতে পারে প্রশাসন। গণ টোকাটুকি রুখতে এবং মাধ্যমিক পরীক্ষায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে মঙ্গলবার সব জেলাশাসক ও পুলিশ সুপারের সঙ্গে ভিডিয়ো সম্মেলন করেন রাজ্যের মুখ্যসচিব রাজীব সিংহ।
পরীক্ষায় নকল ঠেকাতে প্রত্যেক জেলা প্রশাসনকে বিশেষ নির্দেশ দেন তিনি। প্রশ্নপত্র ছড়িয়ে পড়া এবং নকল রুখতে প্রয়োজনে ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়ারও ইঙ্গিত পাওয়া গিয়েছে এই বৈঠকে।
আগেই মাধ্যমিক পরীক্ষার নিরাপত্তার খাতিরে শিক্ষকদের স্মার্ট ওয়াচ পরা যাবে না বলে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এবার ইন্টারনেট পরিষেবাও  বন্ধ করে দেওয়া হতে পারে বলে খবর। গত বছর মাধ্যমিক পরীক্ষার সময় পরীক্ষা কেন্দ্রে মোবাইল ফোন নিয়ে কারও প্রবেশাধিকার ছিল না। তার পরেও হোয়াটস অ্যাপের মাধ্যমে প্রশ্নপত্র চালান করার খবর প্রকাশ্যে এসেছিল। এবার তাই সেই সব সমস্যা নিয়ন্ত্রণে আরও কড়া হতে বলা হচ্ছে প্রশাসনকে।
নবান্ন সূত্রের খবর, যে সব জেলার পরীক্ষা কেন্দ্রে টোকুটুকির খবর বেশি আসে, সেখানে বেশি করে পুলিশ মোতায়েন করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পরিক্ষার্থীদের ভালোভাবে তল্লাশি করে পরীক্ষা কেন্দ্রে ঢুকতে দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার মতো ‘নিবিড় তল্লাশি’ না হলেও পরীক্ষা প্রক্রিয়া স্বচ্ছ রাখতে পুলিশকে ন্যূনতম তল্লাশি চালাতে হবে বলে জানান রাজ্য সরকারের এক শীর্ষ আধিকারিক। সেই সঙ্গে ইন্টারনেটের মাধ্যমে প্রশ্নপত্র ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কার কথা মাথায় রেখে এলাকাভিত্তিক ইন্টারনেট পরিষেবা প্রয়োজনে বন্ধ রাখা হতে পারে। মহকুমাশাসক, বিডিও, ম্যাজিস্ট্রেট স্তরের অফিসাররা আচমকা কোনও পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন করবেন। পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রশ্নপত্র পৌঁছনো থেকে পরীক্ষা শেষ হওয়া পর্যন্ত গোটা সময়টা নিরাপত্তা কড়াকড়ি করার কথা বলা হয়েছে। পরীক্ষাকেন্দ্রের বাইরে জটলা হলে পুলিশকে পদক্ষেপ করতে বলা হয়েছে। পাশাপাশি মাধ্যমিক পরীক্ষার দিনগুলিতে পরিবহণ ব্যবস্থার উপর বিশেষ নজর দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যসচিব রাজীব সিনহা।

Comments
Loading...