মুখ্যমন্ত্রী: বাড়ির পাশাপাশি প্রত্যেক পরিবারকে ৫ লক্ষ ক্ষতিপূরণ দেবে মেট্রো, পাশে থাকবে রাজ্য

কে ভুল, কে ঠিক, তা দেখার সময় এটা নয়। একটা বিপর্যয় হয়েছে, সেটাকে কাটিয়ে উঠতে হবে। আর যাতে কোনও সমস্যা না হয়, তা নিশ্চিত করতে হবে। ক্ষতিগ্রস্ত বাড়ির বদলে দিতে হবে বাড়ি, দোকানের বদলে দিতে হবে দোকান। নবান্নে বউবাজার পুনর্বাসন বৈঠক শেষে বললেন মুখ্যমন্ত্রী। পাশাপাশি ক্ষতিগ্রস্ত প্রতিটি পরিবারকে দ্রুত ন্যূনতম ৫ লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেওয়া উচিত মেট্রোর বলেও জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যাঁদের বাড়ি মেট্রোর কাজের জন্য ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, তাঁদের বাড়ি সম্পূর্ণ মেরামত করে দেবে মেট্রো। পাশাপাশি বাড়ি মেরামতির সময় বাসিন্দারা ভাড়া বাড়িতে থাকতে পারবেন। ভাড়ার খরচও দেবে মেট্রো। একই নীতিতে বউবাজার এলাকার ক্ষতিগ্রস্ত দোকান এবং ব্যবসায়ীদেরও পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করা হবে বলেও এদিন জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। গোটা পরিস্থিতি নিয়ে নিয়মিত পর্যালোচনার জন্য মুখ্যসচিবের নেতৃত্বে একটি কোর গ্রুপ তৈরি করে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। তাতে মেট্রোর জেনারেল ম্যানেজারও থাকবের। থাকবেন ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার এবং ব্যবসায়ীদের ৪ প্রতিনিধিও।

মুখ্যমন্ত্রী এদিন বলেন, জেম সিনেমার কাছে মেট্রো রেলের একটি ফাঁকা বাড়ি আছে। সেখানে ক্ষতিগ্রস্ত বাসিন্দাদের থাকার ব্যবস্থা করা যায় কিনা তা খতিয়ে দেখার কথা বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী। পাশাপাশি মেট্রো রেল রাজ্য সরকারের কাছে যা সহযোগিতা চাইবে, তা করা হবে বলেও এদিন জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মুখ্যমন্ত্রী জানান, এ পর্যন্ত মোট ৫২ টি বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত বাড়িতে এখনও চাপা পড়ে রয়েছে বাসিন্দাদের গুরুত্বপূর্ণ নথি পত্র। তা যাতে চুরি না হয়, সেজন্য মেট্রোর পাশাপাশি সিসিটিভি সারভিলেন্স চালাবে কলকাতা পুলিশও। তবে নিরাপত্তার জন্যই ক্ষতিগ্রস্ত বাড়িতে এখন বেশি মানুষ ঢুকতে পারবে না বলেও জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বৈঠকে হাজির ছিলেন মেট্রোর প্রতিনিধিও। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি জানান, বাড়ি মেরামতির প্রক্রিয়া এক বছরের মধ্যে শেষ করার চেষ্টা করা হবে।

Comments
Loading...