অসমে এনআরসি: দেশের নাগরিক নন ভারতীয় বায়ুসেনায় ৩৭ বছর চাকরি করে অবসর নেওয়া অফিসার চবিন্দ্র শর্মা!

এনআরসির প্রথম দুটি খসড়া থেকে নাম বাদ পড়ার পরও আশায় ছিলেন চূড়ান্ত তালিকায় অবশ্যই নাম থাকবে। কিন্তু না, শনিবার প্রকাশিত এনআরসির চূড়ান্ত তালিকাতেও নাম এল না ভারতীয় বায়ুসেনার অবসরপ্রাপ্ত অফিসার চবিন্দ্র শর্মার। অসমের বিশ্বনাথ চরিয়ালির বাসিন্দা চবিন্দ্র শর্মা বিস্ময় প্রকাশ করেন, একই উত্তরাধিকার পরিচয় দিয়ে তাঁর সন্তানরা নাগরিকপঞ্জিতে জায়গা পেলেও কীভাবে তিনবারেও উঠল না তাঁর নাম! পুরো ঘটনাকে ‘দুর্ভাগ্যজনক’ বলে মন্তব্য করেছেন ২০১৮ সালে অবসর নেওয়া সাম্মানিক ফ্লাইট লেফটনেন্ট চবিন্দ্র শর্মা।
গত শনিবার চূড়ান্ত এনআরসি থেকে বাদ পড়েছে ১৯ লক্ষ মানুষের নাম, যার মধ্যে একজন হলেন ভারতীয় বায়ুসেনার প্রাক্তন অফিসার চবিন্দ্র শর্মা। দীর্ঘ ৩৮ বছর ধরে দেশের সেবায় কাজ করেছেন তিনি। এহেন ৫৭ বছরের প্রাক্তন বায়ুসেনা অফিসার বিশ্বাস করতে পারছেন না, তাঁরই নাম নেই এনআরসিতে।
গত ২০১৭ সালের ৩১ শে ডিসেম্বর প্রকাশিত এনআরসি খসড়া থেকে বাদ গিয়েছিল বায়ুসেনা অফিসারের নাম। এরপর ফের আবেদন করেন তিনি। কিন্তু না, ২০১৮ সালের ৩০ শে জুলাইয়ের নাগরিকপঞ্জির খসড়াতেও নাম ওঠেনি এক সময়ে অসম, পশ্চিমবঙ্গ, দিল্লি, জম্মু-কাশ্মীর, রাজস্থান সহ দেশের একাধিক জায়গায় কাজ করা এই ভারতীয় বায়ুসেনা অফিসারের। তাঁর কথায়, পিতৃপরিচয় থেকে স্কুলের শংসাপত্র, আধার কার্ড, কাজের পরিচয়পত্র, দেশের নাগরিকত্ব প্রমাণে সব কিছুই জমা করেছিলেন। কিন্তু তৃতীয়বারও চূড়ান্ত নাগরিকপঞ্জির তালিকাতে জায়গা পাননি তিনি। প্রাক্তন বায়ুসেনা অফিসার প্রশ্ন তোলেন, কীভাবে তিন বার ধরে একই ভুল হয়! যদিও তাঁর পরিবারের অন্য সদস্যদের নাম এনআরসিতে রয়েছে। চবিন্দ্র শর্মার মেয়ে ইঞ্জিনিয়ার, মহীশুরে ইনফোসিসে কর্মরত। ছেলে গোয়ার এক বিখ্যাত হোটেলে কর্মরত। তাঁদের সবার নাম থাকাটাই এখন স্বস্তিদায়ক বলে মনে করছেন ভারতীয় বায়ুসেনার প্রাক্তন অফিসার।

Comments
Loading...