গণতন্ত্রের স্বার্থে কখনও কখনও মাথা নত করতে হয়, আইন প্রত্যাহার করে মোদীকে শান্তি ফেরানোর আবেদন মমতার

আপনি দেশের প্রধানমন্ত্রী, শুধু বিজেপির প্রধানমন্ত্রী নন। দেশে শান্তি প্রতিষ্ঠার স্বার্থে নাগরিকত্ব আইন ও নাগরিকপঞ্জি প্রত্যাহার করুন। তৃণমূল ভবনে সাংবাদিক বৈঠক থেকে নরেন্দ্র মোদীকে আবেদন (Mamata Appeals Modi) জানালেন মমতা ব্যানার্জি।

নয়া নাগরিকত্ব আইন নিয়ে দেশজুড়ে শুরু হয়েছে বিক্ষোভ আন্দোলন। আর সেই আন্দোলনকে দমাতে কোমর বেঁধে নেমেছে পুলিশ প্রশাসন। ম্যাঙ্গালোর ও লখনউতে পুলিশের গুলিতে মৃত্যু হয়েছে ৩ জনের। অভূতপূর্বভাবে দিল্লিতে বন্ধ করে দিতে হয়েছে মোবাইল নেটওয়ার্ক। বেঙ্গালুরুতে পুলিশি হেনস্থার মুখে অপদস্থ হতে হয়েছে ইতিহাসবিদ রামচন্দ্র গুহকে। মুম্বই, আমদাবাদ, হায়দরাবাদ, কলকাতা সহ দেশের সমস্ত বড় শহরে পথে নেমে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন সাধারণ মানুষ। এই পরিস্থিতিতে দেশে শান্তি প্রতিষ্ঠায় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চাইলেন মমতা ব্যানার্জি। বললেন, গায়ের জোর খাটিয়ে, বন্দুকের জোর দেখিয়ে গণতান্ত্রিক আন্দোলন দমন করা যায় না। গণতন্ত্রের স্বার্থে কখনও কখনও মাথা নত (Mamata Appeals Modi) করতে হয়। মমতার আবেদন, আচ্ছা নাই বা করলেন মাথা নত, শুধুমাত্র বলুন আমরা নয়া নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসি প্রত্যাহার করছি। মানুষ এটাই শুনতে চান।

নরেন্দ্র মোদীকে আবেদনই শুধু নয়, মমতা এদিন আন্দোলনের রূপরেখাও সাফ করেছেন। জানিয়েছেন, আগামী কয়েকদিন তৃণমূলের তরফে কী কী কর্মসূচি নেওয়া হবে। সাধারণ মানুষের কাছে তাঁর আবেদন, প্ররোচনায় পা দেবেন না। শান্তি বজায় রেখে গণতান্ত্রিক পথে আন্দোলনের পক্ষে সওয়াল করেন তৃণমূল নেত্রী। এদিন বিজেপির সমালোচনা করে মমতা বলেন, বিজেপি নেতারা পুলিশের গুলি চালনাকে সমর্থন করছেন। কী চলছে দেশে! রামচন্দ্র গুহর মতো মানুষকে যে এভাবে হেনস্থা করা যায়, তা না দেখলে বিশ্বাস করতাম না, বলেন মমতা।

(শুক্রবার বিকেলে পার্ক সার্কাস ময়দানে মমতা ব্যানার্জির জনসভা, সেখানে তিনি কী বার্তা দিলেন তা আমরা জনসভা শেষের পর প্রকাশ করব)

Comments
Loading...