একুশে বিজেপিকে বাংলা ছাড়া করব, হুঁশিয়ারি মমতার

দিল্লি বিধানসভা ভোটের ফলাফলের মতো এ রাজ্যের বিধানসভা ভোটেও ভরাডুবি হবে বিজেপির। ২০২১ সালেই বিজেপিকে বাংলা ছাড়া করব। সব রাজ্যে হারছে, বিজেপির ‘শেষ কলস ডুববে’ ২০২১ সালের বিধানসভা ভোটে, হুঁশিয়ারি তৃণমূল নেত্রী মমতা ব্যানার্জির।
এই নিয়ে টানা তৃতীয়বারের জন্য দিল্লিতে মুখ্যমন্ত্রীর কুর্সিতে বসতে চলেছেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল। কেজরিওয়ালকে শুভেচ্ছা জানিয়ে এ রাজ্যে তাঁরও হ্যাটট্রিকের ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। এই সভাতেও সিএএ, এনআরসি, এনপিএ-র বিরুদ্ধে নেত্রীর সুর ছিল চড়া। তিনি ফের বলেন, আমি বেঁচে থাকতে এখানে এ সব করতে দেব না, দেব না, দেব না।
মঙ্গলবার বাঁকুড়ার সতীঘাটের কর্মীসভায় মমতা বলেন, গত কয়েক মাসে মহারাষ্ট্র, ঝাড়খণ্ড এবং এখন দিল্লিতে বিজেপির ভরাডুবি হয়েছে। সব রাজ্যেই এখন বিদ্বেষের রাজনীতির বিরুদ্ধে ঢেলে ভোট দিচ্ছেন মানুষ। ২০২১ সালে রাজ্য বিধানসভা ভোটে বিজেপির ‘শেষ কলস’ ডুববে। তিনি বলেন, বিজেপিকে পরাজিত করে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার জন্য বাংলার তরফে ‘বন্ধু’ অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে ফোন করে শুভেচ্ছা জানিয়েছি। আগামী দিনে এ রাজ্যেও বিজেপির একই ফল হবে। মমতার কথায়, আজকে আমি খুব খুশি যে, মহারাষ্ট্র, ঝাড়খণ্ড, দিল্লি, সব জায়গায় বিজেপিকে মানুষ বাতিল করে দিয়েছেন। ছাত্র, যুব,মহিলাদের উপর যে অত্যাচার হয়েছে তারই জবাব মিলেছে দিল্লির ভোটে।
নয়া নাগরিকত্ব আইন, এনআরসি, এনপিআর বিরোধী আন্দোলনে রাজধানী দিল্লির জামিয়া মিলিয়া বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শাহিন বাগে জড়ো হওয়া পড়ুয়া ও মহিলাদের উপর আক্রমণের ঘটনায় বিজেপিকে সরাসরি দায়ী করেন মমতা। তিনি আরও বলেন, এয়ার ইন্ডিয়া থেকে রেল, বিভিন্ন রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা বিক্রি করে, দেশ বিক্রি করার যে রাস্তা নিয়েছে তারই ফল মিলেছে দিল্লির ভোটে।
এ রাজ্যে বিজেপির সঙ্গে সিপিএম যুক্ত হয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে ‘ফন্দি আঁটছে’ বলেও অভিযোগ করেন মমতা। তাঁর কথায়, গত লোকসভা ভোটে বামেরা নিজেদের ভোট বিজেপিকে দিয়ে এভাবে নিজেদের সাইনবোর্ড উঠিয়ে দেবে, ভাবতে পারিনি। কিন্তু যতই তাঁদের বিরুদ্ধে বিজেপি-বাম-কংগ্রেস ফন্দি করবে, ততই তৃণমূলের শক্তি বাড়বে বলে দাবি করেন মমতা।

Comments
Loading...