মুখ্যমন্ত্রী: মায়ের সঙ্গে নাইট শোয়ে ওঁর সিনেমা দেখতাম, সৌমিত্র দা’দের মৃত্যু হয় না

সৌমিত্রের জন্মদিবস উদযাপন অনুষ্ঠানে নস্টালজিক মমতা

‘জীবনে কী পাব না’ গানে ওঁর পোজ কোনও ডান্সার পারবে না। সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়ের ৮৬তম জন্মদিবস উদযাপনের অনুষ্ঠানে মন্তব্য করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। এদিন মুখ্যমন্ত্রী ফাঁস করলেন তাঁর নাইট শোয়ে সিনেমা দেখার অভিজ্ঞতার কথা।

সৌমিত্রবাবুর জন্মদিবস উদযাপন অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে বৃহস্পতিবার আবেগবিহ্বল হয়ে পড়লেন মুখ্যমন্ত্রী। ছোটবেলার দিনগুলোর স্মৃতিচারণা করলেন মমতা। তাঁর কথায়, খুব ছোটবেলার কথা মনে পড়ে। মা খুব নাইট শোয়ে সিনেমা দেখতেন। বিজলী, পুণ্য, ইন্দিরা ও উজ্জ্বলা সিনেমায় মায়ের নাইট শোয়ে সিনেমা দেখার সঙ্গী ছিলাম আমি। আমাকে চানাচুর, বাদাম কিনে দিতেন মা। তাই খেয়ে কিছুক্ষণ পর ঘুমিয়ে পড়তাম আমি। আর মা সিনেমা দেখত। এভাবেই ‘প্রথম কদমফুল’, ‘তিন ভুবনের পারে’ দেখেছি। ‘তিন ভুবনে পারে’ সিনেমার ‘জীবনে কী পাব না’ গানে সৌমিত্রের নাচের দৃশ্য স্মরণ করে মুখ্যমন্ত্রীর মন্তব্য, সেইসময়ে যে পোজ দিয়েছিলেন, আমি মনে করি সেই ভঙ্গিমা এখনকার কোনও ডান্সারও দিতে পারবেন না। তিনি বলেন, চিরকাল তিনি আমাদের মধ্যে বেঁচে থাকবেন। সৌমিত্রদাদের মৃত্যু হয় না। পার্থিব শরীর চলে গেলেও তাঁরা বেচে ছিলেন, আছেন ও থাকবেন। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলা ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে উত্তম কুমার মারা যাওয়ার পর সৌমিত্রই ছিলেন অভিভাবক। আমি ভাবতে পারিনি তিনি মারা যাবেন! এত সুন্দর কথা বললাম ওনার সঙ্গে!

সৌমিত্র চ্যাটার্জির পরিবারের উদ্দেশে মমতার মন্তব্য, আমার কাছে দেওয়ার মতো কিছু নেই। আপনাদের যদি কোনও প্রস্তাব থাকে আমরা নিশ্চয় তা করব। বারুইপুরে পদ্মপুকুরে মহানায়ক উত্তম কুমারের নামে সিটি যেমন করেছি তেমন কোনও কিছু করা যেতে পারে। তাঁর কথায়, উত্তম কুমার মারা যাওয়ার পর আর্থিক সমস্যা হয়েছিল তাঁর পরিবারের। সে সময় যতটা পেরেছি চেষ্টা করেছি। সুপ্রিয়া দেবীও সমস্যায় পড়েছিলেন। এঁরা সবাই যোগাযোগটা রেখেছিলেন এটাই সৌভাগ্যের। কতটা করতে পেরেছি জানি না তবে আন্তরিকতার অভাব ছিল না, মন্তব্য মুখ্যমন্ত্রীর। বলেন, এটা কৃতিত্ব নেওয়ার ব্যাপার নয়, আমার কর্তব্য। এটুকু না করতে পারলে কীসের মানুষ!

Comments
Loading...