নন্দীগ্রাম থেকে প্রার্থী মমতা, জানালেন সম্ভব হলে ভবানীপুর থেকেও প্রার্থী তিনি

নন্দীগ্রামে মমতা বনাম শুভেন্দু?

নন্দীগ্রামে আমি দাঁড়াবই, পারলে ভবানীপুর ও নন্দীগ্রাম দু’জায়গাতেই আমি প্রার্থী হব। সোমবার তেখালির সভা থেকে ঘোষণা তৃণমূল নেত্রীর। এদিন ভরা সভায় দাঁড়িয়ে মমতা বলেন, ‘নন্দীগ্রাম সিটে ভালো মানুষ দেব, যিনি পড়ে থাকবেন।’ এরপরেই তৃণমূল নেত্রীর ঘোষণা, ‘আমিই যদি নন্দীগ্রামে দাঁড়াই কেমন হয়?’ তাঁর কথায়, ভাবছিলাম, কথার কথা, বললাম। ইচ্ছে হল…গ্রামীণ জায়গা… মনের জায়গা… আমি হয়ত ইলেকশনে সময় দিতে পারব না। আমাকে তো ২৯৪ কেন্দ্রে প্রচার করতে হবে। ইলেকশনের পর আমি দেখে নেব। এরপর রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সির কাছে মমতার আবেদন, আমার মনবাসনা, ভবানীপুরের সঙ্গে নন্দীগ্রামেও যেন আমার নামটা থাকে। এই ঘোষণার পরেই উচ্ছ্বাসে ফেটে পড়ে জনসভায় উপস্থিত জনতা।

সোমবার সভায় দাঁড়িয়ে মমতা বলেন, নন্দীগ্রাম আমার কাছে লাকি জায়গা। ‘১৬ থেকে এখান থেকেই ইলেকশান ঘোষণা করেছিলাম। এবারও এখান থেকেই শুরু হল জেতার পালা। বলেন, নন্দীগ্রাম থেকে প্রত্যেকটা সিটে তৃণমূল জয়ী হবে। এরপরেই নন্দীগ্রামের প্রার্থীর নাম নিয়ে কার্যত বোমা ফাটান মমতা। প্রথমে তিনি বলেন, নন্দীগ্রাম বিধানসভার প্রার্থীর নাম এখনই বলছি না পরে বলব। তবে ভালো মানুষ দেব। যিনি সত্যিকারে ভালো মানুষ, এখানে মানুষের সঙ্গে পড়ে থাকবেন’। এরপরেই তৃণমূল নেত্রীর ঘোষণা, আমি যদি নন্দীগ্রামে দাঁড়াই কেমন হয়? তৃণমূল নেত্রী যোগ করেন, ভবানীপুরের মানুষ হয়ত দুঃখ পেতে পারে, যদি সম্ভব হয় দু’জায়গা থেকেই প্রার্থী হব। তবে নন্দীগ্রাম থেকে আমি দাঁড়াবই। যেহেতু এখান থেকে আমি প্রথম প্রার্থী ঘোষণা করেছিলাম, আমার বিবেক আমাকে বলল এখান থেকেই আবার ঘোষণা কর।

Comments
Loading...