বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভেঙে প্রমাণ লোপাট করেছে তৃণমূলঃ মোদী, তদন্ত করে মোদীকে জেলে ঢোকানোর পালটা হুমকি মমতার

রাজ্যের শেষ দিন বৃহস্পতিবার নির্বাচনী প্রচারে বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙা প্রসঙ্গে মোদী-মমতা দ্বৈরথ চরমে উঠল।
অমিত শাহের রোড শোয়ে গণ্ডগোল ও বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙচুর নিয়ে এদিন উত্তর প্রদেশের সভা থেকে তৃণমূলের দিকেই অভিযোগের আঙুল তুলেছেন প্রধানমন্ত্রী। অন্যদিকে, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তীব্র কটাক্ষ, মিথ্যে কথা বলার জন্য কান ধরে ওঠবোস করা উচিত প্রধানমন্ত্রীর। মোদীকে জেলে ঢোকানোরও হুঁশিয়ারি দিলেন মমতা।
মঙ্গলবার অমিত শাহের রোড শোয়ে বিজেপি ও তৃণমূলের নজিরবিহীন সংঘাত ও বিধান সরণিতে বিদ্যাসাগর কলেজের ভেতরে থাকা বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙচুরের ঘটনার জেরে রাজ্য রাজনীতি উত্তপ্ত। বৃহস্পতিবার এই প্রসঙ্গে প্রথমবার মুখ খোলেন প্রধানমন্ত্রী। উত্তর প্রদেশের সভা থেকে তিনি প্রতিশ্রুতি দেন, একই জায়গায় বিদ্যাসাগরের পঞ্চধাতুর মূর্তি বসাবেন তাঁরা। এরপরে মথুরাপুরের সভা থেকে মূর্তি ভাঙার জন্য তৃণমূলের গুন্ডাদের দুষেছেন প্রধানমন্ত্রী, দাবি করেন তাদের শাস্তির।
এর কয়েক ঘণ্টা পরেই মথুরাপুরের মন্দিরবাজারে এক নির্বাচনী সভা থেকে মোদীর মন্তব্যের জবাব দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মমতা জানিয়ে দেন বিদ্যাসাগরের মূর্তি গড়ার টাকা তাঁরা নেবেন না প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে, বাংলা ভিক্ষে চায় না বলে মন্তব্য করেন মমতা। পাশাপাশি তৃণমূলকে দায়ী করার জন্য প্রধানমন্ত্রীকে মিথ্যাবাদী বলে আক্রমণ করে মমতার ঘোষণা, এক লক্ষবার কান ধরে ওঠবোস করা উচিত প্রধানমন্ত্রীর।
মথুরাপুরের সভা থেকে মোদী অভিযোগ করেন, যেভাবে নারদা-সারদার প্রমাণ গায়েব করেছে তৃণমূল, সেইভাবেই বিদ্যাসাগর কলেজের সিসিটিভি ফুটেজও গায়েব করেছে তারা।
মুখ্যমন্ত্রীর পাল্টা প্রতিক্রিয়া, প্রমাণ দিতে হবে প্রধানমন্ত্রীকে, নইলে তাঁকে জেলে ঢোকাবেন তাঁরা। ঘটনার তথ্যপ্রমাণ এবং ভিডিও হাতে আছে বলে দাবি করে, মোদীকে মমতার হুঁশিয়ারি, দুশো বছরের ঐতিহ্য ভেঙেছে তাঁরা। মমতা বলেন, ‘আমরা কিন্তু ছেড়ে কথা বলার লোক নই। আমাদের কাছে প্রমাণ আছে, নথি আছে। নথি নিজেই কথা বলবে।’

Comments
Loading...