করোনার মধ্যেই পরিস্থিতি স্বাভাবিক করতে হবে, অর্থনীতি চালু করার বার্তা দিয়ে রেশন ডিলারদের কড়া হুঁশিয়ারি মুখ্যমন্ত্রীর

চাল-গম লুকিয়ে রাখবেন না, রেশন ডিলারদের কড়া বার্তা মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির। বুধবার মুখ্যমন্ত্রী বলেন, করোনার মধ্যেই বাংলার জাগরণ ঘটাতে হবে।
নবান্নে মঙ্গলবারের সাংবাদিক বৈঠকেও ১০০ দিনের কাজের প্রকল্পে রাজ্যের আরও বেশি সংখ্যক মানুষকে যোগদান করানোর ব্যাপারে জোর  দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। বলেছিলেন, গ্রামীণ অর্থনীতির উপর এই সময় বেশি জোর দিতে হবে। করোনা আবহে প্রধানমন্ত্রী যখন লকডাউনের চতুর্থ পর্বের ইঙ্গিত দিয়েছেন, তখন এদিন সাংবাদিক বৈঠকে অন্যান্য সামাজিক প্রকল্পকে কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে ব্যবহার করতে নির্দেশ দিলেন মমতা। তাঁর কথায়, করোনার মধ্যেও মানুষকে আয়ের পথ বের করে দিতে হবে। বুধবার বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়নমন্ত্রী সুব্রত মুখার্জি। সেই ভিডিও কনফারেন্সিংয়ে মমতার বার্তা, করোনার মধ্যেই গ্রাম বাংলার জাগরণ ঘটাতে হবে।
তিনি আরও বলেন, করোনা পরিস্থিতির মধ্যেই গ্রাম বাংলার অর্থনীতি চালু করতে হবে। আরও দোকানপাট খোলা রাখার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে বলে জানান মমতা। তবে সেইসঙ্গে সামাজিক দূরত্ব বা ফিজিকাল ডিসট্যান্সিং-এর নিয়ম মানা ও মাস্ক ব্যবহারের কথা মনে করিয়ে দিয়েছেন তিনি।
তিনি জানান, মৎস্য বা সেচ দফতরের কাজ শুরু করতে কোনও অসুবিধা নেই। এছাড়া পুজোর আগে বাংলা আবাস যোজনা এবং গ্রামীণ সড়ক যোজনা ইত্যাদির কাজ শেষ করতে নির্দেশ দেন তিনি। রাজ্যের যে পরিযায়ী শ্রমিকরা ঘরে ফিরে এসেছেন তাঁদের কাজের ব্যবস্থা নিশ্চিত করার কথাও বলেন। সেই সঙ্গে এদিন রেশন ডিলারদের হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, খাদ্যপণ্য লুকিয়ে রাখা চলবে না। রাজ্যের কোনও মানুষ যাতে অনাহারে না থাকেন তা নিশ্চিত করতে জেলা শাসকদের নির্দেশ দেন মমতা।

Comments
Loading...