রাজাবাজার থেকে মল্লিকবাজার, বড়দিনের বিরতির পর ফের পথে মমতা, রবিবার যাবেন হেমন্তের শপথে

বড়দিনের বিরতির পর এনআরসি এবং নয়া নাগরিকত্ব আইনের বিরোধিতা করে ফের পথে মমতা ব্যানার্জি। বৃহস্পতিবার দুপুর ১ টায় মুখ্যমন্ত্রী হাঁটবেন রাজাবাজার থেকে মল্লিকবাজার পর্যন্ত। পদযাত্রা শেষে মল্লিকবাজারে সভাও করার কথা তৃণমূল নেত্রীর। এদিকে আগামী ২৯ তারিখ রাঁচিতে হেমন্ত সোরেনের শপথ অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন মমতা ব্যানার্জি। এই কারণে তাঁর পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচিতে বেশ কিছু রদবদল হয়েছে।

লাগাতার পদযাত্রা ও প্রকাশ্য সমাবেশের পর বড়দিন উপলক্ষ্যে একদিন বিরতি নিয়েছিলেন। বৃহস্পতিবার থেকেই আবার পথে নেমে বিতর্কিত নাগরিকত্ব আইনের বিরোধিতা জারি রাখছেন মমতা ব্যানার্জি। বৃহস্পতিবার দুপুর ১ টায় মুখ্যমন্ত্রীর পদযাত্রা রাজাবাজার থেকে মল্লিকবাজার। তারপর সেখানে সভাও করার কথা রয়েছে তাঁর।

বড়দিন উপলক্ষ্যে পথে না নামলেও, ২৫ ডিসেম্বর প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটলবিহারী বাজপেয়ীর ৯৫ তম জন্মদিনে অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ ট্যুইট করেছেন মমতা। তিনি লেখেন, দেশের মঙ্গলের স্বার্থে অটলজি রাজনৈতিক ভেদাভেদের ঊর্ধ্বে থাকতেন। আমরা তাঁর অভাব অনুভব করছি। রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের অভিমত, বর্তমান প্রেক্ষাপটে অটলজির অভাব অনুভব করার ব্যঞ্জনা পৃথক। যা সরাসরি মোদী-শাহ শাসনকে কটাক্ষ বলেও দাবি পর্যবেক্ষকদের একাংশের।

এদিকে আগামী রবিবার ঝাড়খণ্ডের রাজধানীতে শপথ নিতে চলেছেন হেমন্ত সোরেন। ভোটে জেতার পর মমতাই হেমন্ত সোরেনকে প্রথম ট্যুইট করে অভিনন্দন জানান। হেমন্ত সঙ্গে সঙ্গে দিদিকে পাল্টা শুভেচ্ছা জানান। এর আগে মমতার ডাকে ব্রিগেডে ইউনাইটেড ইন্ডিয়ার সমাবেশেও হেমন্ত বক্তৃতা করে গিয়েছেন। স্বভাবতই ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ার সময়েও মমতা সেখানে হাজির থাকুন চেয়েছিলেন স্বয়ং হেমন্ত। সূত্রের খবর, মমতা হেমন্তের ডাকে সাড়া দিয়ে শপথে হাজির থাকছেন।

ফলে রাজ্যে তাঁর পূর্ব নির্ধারিত কর্মসূচিতে পরিবর্তন করতে হয়েছে। রাঁচি থেকে ফিরে মমতা যাবেন পুরুলিয়া। ৩০ ডিসেম্বর সেখানে পদযাত্রা করবেন। তারপর চলে যাবেন উত্তরবঙ্গ। নতুন বছরের ৩ তারিখ মমতা হাঁটবেন শিলিগুড়িতে।

 

(বৃহস্পতিবার পদযাত্রা শেষে সভা করবেন মমতা ব্যানার্জি। সেই সভার যাবতীয় খবর আমরা সভা শেষের পরই আপডেট করব।)

Comments
Loading...