কথা শুনছে না পুলিশ, মুখ্যমন্ত্রীকে নালিশ মন্ত্রীদের, ডিজিকে পদক্ষেপের নির্দেশ ক্ষুব্ধ মমতার

পুলিশের একাংশ কথা শুনছে না। নির্দেশ দিলেও পালন করছে না। মুখ্যমন্ত্রী তথা রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে সরাসরি অভিযোগ করলেন মন্ত্রিসভার একাধিক সদস্য। তার পরিপ্রেক্ষিতে ডিজিকে অবিলম্বে বিষয়টি দেখার নির্দেশ দেন ক্ষুব্ধ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার নবান্নে মমতার অভিযোগ, কিছু থানার অফিসার ও নিচুতলার পুলিশকর্মীদের একাংশ হাত গুটিয়ে বসে আছেন। রিপোর্ট তলব করেছেন প্রশাসনের কাছে।

ভোট মেটার পর নতুন মন্ত্রিসভা অবধি শপথ নিয়ে ফেলেছে। কিন্তু রাজ্যে রাজনৈতিক পরিস্থিতির ঠাণ্ডা হওয়ার নাম নেই। কখনও উত্তরের কোচবিহার আবার কখনও দক্ষিণের বসিরহাট, সন্দেশখালি। রোজ বিজেপি-তৃণমূল সংঘর্ষের খবর আসছে। পরিস্থিতি এমন জায়গায় পৌঁছেছে যে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলের পার্টি অফিস পর্যন্ত দখল করে নেওয়ার অভিযোগ উঠছে বিজেপির বিরুদ্ধে। এই প্রেক্ষিতে এবার পুলিশ মন্ত্রীর কাছেই সরাসরি পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগ করলেন রাজ্য সরকারের একাধিক হেভিওয়েট মন্ত্রী। থানায় অভিযোগ জানাতে গেলে ফিরিয়ে দেওয়া হচ্ছে, দায়ের করা হচ্ছে না এফআইআর, বলে অভিযোগ করেন তাঁরা, বলে সূত্রের খবর। এরপরই ডিজিকে দ্রুত পদক্ষেপ করার নির্দেশ দেন ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী।

সোমবার নবান্নে পর্যালোচনা বৈঠক শেষে মমতা নিজেও বলেন, রাজ্যের কয়েকটি জায়গার পুলিশ অফিসারেরা ঠিকমতো কাজ করছেন না, কয়েকজন ওসি হিংসায় মদত দিচ্ছেন, এমন অভিযোগ আসছে। দ্রুত এ ব্যাপারে পদক্ষেপ করা হবে। সূত্রের খবর, বিভিন্ন জেলায় পুলিশি নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ এনে ফিরহাদ হাকিম, শুভেন্দু অধিকারী, জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক সহ বেশ কয়েকজন মন্ত্রী মমতার কাছে অভিযোগ করেন। তাঁদের অভিযোগ, কয়েকজন পুলিশ অফিসার কথা শুনছেন না। থানায় এফআইআর দায়ের করতে গেলেও তা গ্রহণ করছেন না কয়েকটি থানার অফিসার, এমনকী পুলিশের নীচু তলার একাংশ নিজেদের কর্তব্য পালন করছেন না বলে মুখ্যমন্ত্রী তথা রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে অভিযোগ জানান মন্ত্রীরা।
অন্যদিকে, এই প্রসঙ্গে বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের খোঁচা, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর ভূমিকায় ব্যর্থ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাই তাঁর দলের মন্ত্রীরাও এখন পুলিশি নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ আনছেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পদ থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পদত্যাগেরও দাবি জানিয়েছে বিজেপি।

Comments
Loading...