প্রচণ্ড গরম থেকে স্বস্তি দিয়ে বৃষ্টি শুরু রাজ্যজুড়ে, বঙ্গোপসাগরে ফের নিম্নচাপ

নাভিশ্বাস ওঠা গরম থেকে খানিক স্বস্তি। বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই শুরু হয়েছে দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে প্রাক-বর্ষার বৃষ্টি। এদিন সকাল থেকে কলকাতা, হাওড়া, উত্তর ২৪ পরগনা, দক্ষিন ২৪ পরগনায় বজ্র-বিদ্যুৎ সহ বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি শুরু হয়েছে। হাওয়া অফিসের পূর্বাভাস, আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই বঙ্গে বর্ষা প্রবেশের জোর সম্ভাবনা। আবহাওয়া দফতর জানাচ্ছে, অসম পর্যন্ত পৌঁছে গিয়েছে দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ু। উত্তর-পূর্ব ভারতের বেশ কয়েকটি রাজ্যেও ঢুকে পড়েছে বর্ষা। আগামী ৪৮ ঘণ্টায় ভারী বৃষ্টিতে ভাসতে পারে উত্তরবঙ্গের জেলাগুলি। দক্ষিণবঙ্গে বজ্র-বিদ্যুৎ সহ বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির পূর্বাভাস জানিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দফতর ৷
বৃহস্পতিবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৭.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি বেশি। বুধবার বিকেলে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৪.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বাতাসে আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ ৭০ থেকে ৯২ শতাংশ। আলিপুর আবহাওয়া দফতর জানাচ্ছে, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা থেকে কলকাতায় বজ্র-বিদ্যুৎ সহ বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। যদিও আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তি থাকবে।
উত্তর বঙ্গোপসাগর পেরিয়ে গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে আগামী ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে ঢুকে পড়বে মৌসুমি বায়ু। এমনটাই অনুমান আবহাওয়াবিদদের। পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপ শক্তি বাড়িয়ে সুস্পষ্ট নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। পশ্চিম ও উত্তর পশ্চিম দিকে তা ক্রমশ এগোচ্ছে ৷ এর প্রভাবে অন্ধ্র ও ওড়িশা উপকূলে বৃহস্পতিবার থেকে ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে। শুক্রবার পর্যন্ত অন্ধ্র ও ওড়িশা উপকূলের মৎস্যজীবীদের সাগরে যেতে নিষেধ করা হয়েছে। আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে, বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপের হাত ধরে শুক্রবার বা শনিবারের মধ্যেই দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বাতাস ঢুকে পড়বে বাংলায়।
গত বছরের চেয়ে এ বছরের বর্ষায় ভালোই বৃষ্টির আশা করছেন আবহাওয়াবিদরা। আমপানের প্রভাবে প্রবল বৃষ্টি হয়েছে উপকূলীয় জেলাগুলিতে। জুনে প্রাক-বর্ষাতেই ৯৯ মিলিমিটার বৃষ্টি পেয়েছে কলকাতা।

Comments
Loading...