আপাতত স্বস্তি, এখনই এনডিটিভির শীর্ষপদ ছাড়তে হচ্ছে না প্রণয় রায় এবং তাঁর স্ত্রীকে, নির্দেশ স্যাটের

আপাতত স্বস্তি। মঙ্গলবার সিকিউরিটিজ অ্যাপেলেট ট্রাইব্যুনালের (স্যাট) নির্দেশে সাময়িক স্বস্তি মিলল এনটিভির ডিরেক্টর প্রণয় রায় ও তাঁর স্ত্রী রাধিকা রায়ের। আগামী ৬ সপ্তাহের মধ্যে সেবির নোটিসের প্রতিক্রিয়া দেওয়ার জন্য সময় দেওয়া হয়েছে রায় দম্পতিকে। ততদিন তাঁরা এনডিটিভি (নিউ দিল্লি টেলিভিশন লিমিটেড) এর শীর্ষপদ আগের মতোই সামলাতে পারবেন বলে জানিয়েছে সিকিউরিটিজ অ্যাপলেট ট্রাইবুনাল।
গত শুক্রবার এনডিটিভির শীর্ষপদ ছাড়ার জন্য সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ বোর্ড অব ইন্ডিয়া (সেবি) নোটিস পাঠিয়েছিল প্রণয় রায় ও তাঁর স্ত্রী রাধিকা রায়কে। দু’বছরের জন্য এনডিটিভির শীর্ষপদ থেকে তাঁদের সরতে নির্দেশ দেওয়া হয় ওই নোটিসে। রায় দম্পতির বিরুদ্ধে অভিযোগ, ২০০৮ থেকে ২০১০ সালের মধ্যে এনডিটিভি প্রথমে আইসিআইসিআই ব্যাঙ্ক, তারপর কমার্শিয়াল প্রাইভেট লিমিটেড (ভিসিপিএল) নামক একটি সংস্থার থেকে ঋণ নেয়। কিন্তু এই সংক্রান্ত সমস্ত তথ্য প্রণয় রায় কিংবা রাধিকা রায় শেয়ার বাজারে গোপন করেছেন। এই ঋণ-তথ্য না জেনেই এনডিটিভির শেয়ারে বিনিয়োগ করেছেন বহু মানুষ, যা একপ্রকার প্রতারণা বলে নোটিসে উল্লেখ করে সেবি।
প্রণয় রায় ও রাধিকা রায়কে সেবি নির্দেশ দেয়, এনডিটিভির শীর্ষপদ থেকে তো সরতেই হবে, তাছাড়া অন্য কোনও সংস্থার ডিরেক্টর বা ম্যানেজারিয়াল পদেও থাকতে পারবেন না তাঁরা। এই নির্দেশের বিরোধিতা করে আইনি লড়াইয়ে যাচ্ছেন বলে ঘোষণা করেছিল এনডিটিভি কর্তৃপক্ষ। এই প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার সিকিউরিটিজ অ্যাপলেট ট্রাইব্যুনাল (স্যাট) জানিয়েছে, এখনই সংস্থার শীর্ষ পদ থেকে সরানো যাবে না প্রণয় রায় ও রাধিকা রায়কে। মঙ্গবার সিকিউরিটিজ অ্যাপেলেট ট্রাইব্যুনাল জানায়, যে সংস্থার ৬১ শতাংশ শেয়ার বাজারে রয়েছে, সেই সংস্থাকে মাথাহীন করা যায় না। তারা এও জানায়, মঙ্গলবার থেকে ৬ সপ্তাহের মধ্যে সেবির অভিযোগের প্রেক্ষিতে জবাব দিতে হবে প্রণয় রায় ও রাধিকা রায়কে। প্রত্যুত্তরের জন্য সেবিকেও তিন সপ্তাহ সময় দেওয়া হবে। চলতি বছরের ১৬ সেপ্টেম্বর এই ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে স্যাট।

Comments
Loading...