বাধা থাকছে না ১৪ মে’র পঞ্চায়েত ভোটে, নির্দেশ সুপ্রিম কোর্ট ও হাইকোর্টের

১৪ তারিখের পঞ্চায়েত ভোটে আর বাধা থাকছে না। বৃহস্পতিবার নিরাপত্তা সংক্রান্ত মূল মামলার রায়দানে কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চ জানিয়েছে, রাজ্য নির্বাচন কমিশনই ঠিক করবে কবে হবে পঞ্চায়েত ভোট । পাশাপাশি এদিনের রায়ে বলা হয়েছে, রাজ্যের দেওয়া নিরাপত্তা ব্যবস্থায় যদি নির্বাচন কমিশন সন্তুষ্ট হয় তাহলে নির্বাচন প্রক্রিয়ায় হস্তক্ষেপ করবে না আদালত। কারণ আদালতের নিজস্ব কোনও নিরাপত্তা বাহিনী নেই। একই সঙ্গে এদিন নির্ধারিত সময়ে রাজ্যে পঞ্চায়েত ভোটে সবুজ সংকেত দিয়েছে সুপ্রিম কোর্টেও। প্রধান বিচারপতির বেঞ্চে এদিন মামলার শুনানি হয়। কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি বিশ্বনাথ সমাদ্দারের ডিভিশন বেঞ্চ ই-মনোনয়ন সংক্রান্ত যে রায় দিয়েছিল তা এদিন তাতে স্থগিতাদেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। শীর্ষ আদালত জানিয়েছে, অনলাইন মাধ্যমে দেওয়া কোনও প্রার্থীর মনোনয়ন গ্রহণ করা হবে না। তবে সুপ্রিম কোর্ট এদিন জানিয়েছে, রাজ্যে ত্রিস্তর পঞ্চায়েতের যে ৩৪ শতাংশ আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় প্রার্থীরা জয়ী হয়েছেন, মামলার নিষ্পতি না হওয়া পর্যন্ত তাঁদের জয়ী বলে ঘোষণা করতে পারবে না কমিশন। সুপ্রিম কোর্টে মামলার পরবর্তী শুনানি ৩ জুলাই।

পঞ্চায়েত ভোটের নিরাপত্তা ইস্যুতে এদিন গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশ দিয়েছে কলকাতা হাইকোর্টের প্রধানবিচারপতির নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চ। ২০১৩ সালের পঞ্চায়েত নির্বাচনের প্রসঙ্গ তুলে এদিন কোর্ট জানিয়েছে, সে বছর কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে নির্বাচন হলেও এড়ানো যায়নি হানাহানি, ক্ষয়ক্ষতি। তাই এবছর কেন্দ্রীয় বাহিনী ছাড়া ভোট হলে যদি কোনও প্রাণহানী বা ক্ষয়ক্ষতি হয় তাহলে রাজ্যকে ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। প্রয়োজনে, রাজ্য সরকারের যে সকল আধিকারিক নিরাপত্তা সংক্রান্ত রিপোর্ট কমিশনকে জমা দিয়েছেন তাঁদের থেকে ক্ষতিপূ্রণ আদায় করতে হবে।

Comments
Loading...