নেতাই দিবসে শ্রদ্ধা শুভেন্দুর, গঙ্গাজল দিয়ে শহিদ বেদী ধুয়ে সভা তৃণমূলের

নেতাই দিবসকে কেন্দ্র করে দড়ি টানাটানি শুভেন্দু বনাম পার্থদের

তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যাওয়া শুভেন্দুর ছোঁয়ায় নেতাইয়ের শহিদ বেদী গঙ্গাজল দিয়ে ‘পবিত্র’ করল তৃণমূল। তার পর তাতে শ্রদ্ধা জানান পার্থ চট্টোপাধ্যায়- সহ তৃণমূল নেতারা। 
নন্দীগ্রামের জমি আন্দোলনে কার ভূমিকা কত, তা নিয়ে চাপানউতোর আগেই শুরু হয়েছে। এবার সেই তালিকায় যোগ হল নেতাই।  
বাম জমানার একেবারে শেষে ঝাড়গ্রামের নেতাইয়ে মৃত্যু হয় ৯ জনের। ২০১১ সালের ৭ জানুয়ারির সেই ঘটনায় নিহতদের শ্রদ্ধা জানাতে বৃহস্পতিবার নেতাইয়ে জোড়া কর্মসূচি ছিল তৃণমূল ও তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যাওয়া শুভেন্দু অধিকারীর। আর তাই নিয়ে এদিন শুভেন্দু বনাম পার্থদের দড়ি টানাটানির সাক্ষী থাকল নেতাই।
এদিন সকাল আটটার কিছু পরে নেতাইয়ে পৌঁছন শুভেন্দু অধিকারী। সেখানে শহিদ বেদীতে শ্রদ্ধা জানিয়ে তিনি বলেন, ‘এতদিন আর কাউকে দেখা যায়নি। ভোট এসেছে তাই ফের নন্দীগ্রাম, নেতাইয়ের কথা মনে পড়েছে।’ তৃণমূলের কলকাতার নেতারা ‘বহিরাগত’ বলে উল্লেখ করেন শুভেন্দু অধিকারী। তিনি আরও বলেন, শহিদ বেদীটিও আমার প্রচেষ্টায় তৈরি হয়েছে। এর পর নেতাইয়ে নিহতদের পরিবারকে আর্থিক সাহায্য ও শীতবস্ত্র দান করেন শুভেন্দু অধিকারী।
এদিকে বৃহস্পতিবার দুপুরবেলায় সেখানে পৌঁছন তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও মদন মিত্ররা। তাঁরা পৌঁছতেই শহিদ বেদী গঙ্গাজল দিয়ে শুদ্ধিকরণ শুরু হয়। তৃণমূলের দাবি, ‘শুভেন্দুর মতো মিরজাফর শহিদ বেদী ছোঁয়ায় তা অপবিত্র হয়েছে। তাই তার শুদ্ধিকরণ প্রয়োজন।’
এরপর পার্থ চট্টোপাধ্যায় বক্তব্য রাখতে উঠে শুভেন্দুর ভাষাতেই শুভেন্দুকে আক্রমণ করেন, বলেন দলটাকে কোম্পানি বানিয়ে ফেলতে চেয়েছিল ও। একাই সব চালাবে। শুভেন্দুকে নাম না করে নিশানা করে পার্থ বলেন, অর্থের জোরে প্রচার হচ্ছে। উন্নয়ন নিয়ে বিকৃত তথ্য দিচ্ছেন। তৃণমূলের কংগ্রেসের থাকার সময় বিভিন্ন জেলায় দায়িত্ব ছিল। সব কটা আসনে জয় পেয়েছিলেন? এরপর তৃণমূল মহাসচিব যোগ করেন, আসলে দম্ভ ও অহংকার ছিল। চাইতেন আমি একা থাকব, আর সবাই চাকর- বাকরের মতো থাকবে।
পার্থের আরও কটাক্ষ, ‘যেভাবে ‘১৪ সালে অন্যদের সঙ্গে যোগাযোগ ছিল, এখন বিজেপিতে গিয়েও অন্যদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন উনি।’

Comments
Loading...