সক্রিয় সুশান্ত ঘোষ! তৃণমূল-বিজেপি দ্বৈরথের মধ্যেই জঙ্গলমহলে উপস্থিতি জানান দিল সিপিএম

সুশান্ত ঘোষের কর্মসূচিতে জনতার ঢল

বিজেপি না তৃণমূল? এই প্রশ্নে যখন চলছে তর্ক-বিতর্ক ঠিক তখন জঙ্গলমহলে সুশান্ত ঘোষকে সামনে রেখে বড়ো মিছিল করল সিপিএম। বেনাচাপড়ায় খুললো দীর্ঘদিন বন্ধ পার্টি অফিস। তাহলে কি জঙ্গলমহলে ক্ষয়িষ্ণু বামেরা ঘুরে দাঁড়াচ্ছে?

এই প্রশ্ন উঠছে কারণ বিগত কিছুদিন ধরে লাল ঝাণ্ডার কার্যকলাপ। সুশান্ত ঘোষের গড় বলে পরিচিত বেনাচাপড়ায় সিপিএমের পার্টি অফিস দীর্ঘদিন বন্ধ। বুধবার সেই অফিস খুলে গেল। বৃহস্পতিবার গড়বেতা থেকে চন্দ্রকোনা রোড পর্যন্ত মিছিল করলেন বাম কর্মী সমর্থকেরা। মিছিলের একেবারে সামনে সেই সুশান্ত ঘোষ। 

আদালতের নির্দেশে দীর্ঘদিন ঘর ছাড়া থাকতে হয়েছে। ক’দিন আগে সুশান্ত ঘোষ ফিরেছেন বাড়ি। সেই ঘটনাই কি বদলে দিল জঙ্গলমহলে সিপিএমের হালচাল? 

২০১১ সালে তৃণমূলের পরিবর্তনের হাওয়ায় বেসামাল ৩৪ বছরের বাম রাজত্ব। তখনও গড়বেতা থেকে বিপুল ব্যবধানে জিততে কোনও সমস্যা হয়নি সুশান্ত ঘোষের। দাপুটে এই বাম নেতা ২০১৬ সালে ভোটে দাঁড়াননি। জয় পান তৃণমূল প্রার্থী আশিস চক্রবর্তী। দ্বিতীয় স্থানে সিপিএমকে সরিয়ে উঠে আসে বিজেপি। আর ২০১৯ সালের লোকসভায় দেখা যায় বিজেপি ৩৫ হাজার ভোটের লিড নিয়েছে। নতুন করে প্রশ্ন ওঠে তাহলে কি বাম ভোট রামের ঘরে চালান হওয়ার ফায়দা পেল গেরুয়া শিবির? একই জিনিস দেখা গিয়েছিল ২০১৯ লোকসভা ভোটে রাজ্যের বহু আসনে। যেখানে বাম ভোট সরাসরি গিয়েছিল বিজেপিতে। 

আবার একটি ভোটের মুখে বাংলা। সিপিএমের স্থানীয় এক নেতার দাবি, অন্যান্য বারের সঙ্গে এবারের মূল পার্থক্য হল সুশান্ত ঘোষের উপস্থিতি। তিনি এলাকায় ফেরায় বুকে বল পেয়েছেন সিপিএম কর্মী সমর্থকেরা। যারা বিজেপিতে চলে গেছিলেন তারাও ফিরবেন বলে আশাবাদী তিনি। তারই শুরুটা হল বৃহস্পতিবার। 

এদিন গড়বেতা থেকে চন্দ্রকোনা রোড পর্যন্ত মিছিল করে সিপিএম। কৃষি আইন প্রত্যাহারের দাবিতে ওই মিছিলে জনসমাগম হয়েছিল চোখে পড়ার মত। দীর্ঘদিন পর ফের ইনকিলাবের স্লোগানে মুখরিত জঙ্গলমহল। মিছিলে এমন সাড়া দেখে উজ্জীবিত বাম নেতৃত্ব লাগাতার কর্মসূচির পরিকল্পনা নিয়েছেন। চোখে চোখ রেখে লড়ে যাওয়ার বার্তা দিয়েছেন সুশান্ত নিজে। 

এবার বড়ো প্রশ্ন হল, সুশান্ত ঘোষ কি পারবেন রামে চলে যাওয়া বাম ভোট আবার ফিরিয়ে আনতে?

Comments
Loading...