স্বাস্থ্যসাথী কার্ডে নিখরচায় স্টেন্ট বসালেন মিঠুনের ছায়াসঙ্গী

স্বাস্থ্যসাথী কার্ড নিয়ে হাসপাতালে গেলেন, চিকিৎসা করালেন। সুস্থ হয়ে বাড়িও ফিরে এলেন। তিনি আর ৫ জনের মত সাধারণ মানুষ নন। বিজেপির তারকা প্রচারক মিঠুন চক্রবর্তীর ছায়াসঙ্গী প্রদ্যুৎ হালদার। সল্টলেকের একটি নার্সিংহোমে নিখরচায় হৃদরোগের চিকিৎসা করিয়ে বাড়িতে ফিরে এসেছেন তিনি।

স্বাস্থ্যসাথী কার্ডের সুবিধা পাচ্ছেন না সাধারণ মানুষ। মানুষকে ভাঁওতা দেওয়ার জন্য এই কার্ড। অভিযোগ করেছে বিজেপি। অন্যদিকে বিজেপি নেতাদের পরিবারও স্বাস্থ্যসাথীতেই ভরসা রেখেছেন। এবার সেই তালিকায় যোগ হল প্রদ্যুৎ হালদারের নাম। কে এই প্রদ্যোৎ হালদার?
জানা যাচ্ছে, মহাগুরু মিঠুন চক্রবর্তীর ছায়াসঙ্গী এই প্রদ্যোৎ হালদার।

এদিকে রোড শো থেকে সেই মিঠুনই সমালোচনায় ভরিয়ে দিচ্ছেন মমতার স্বাস্থ্য সাথীকে। আর তারই ঘনিষ্ঠ এই কার্ডের সুবিধা নিয়ে বড় অপারেশন করালেন কলকাতায়।

[আরও পড়ুন- রায়দিঘি থেকে মমতা: দেবশ্রীর বিরুদ্ধে ক্ষোভ ছিল তাই প্রার্থী করিনি]

হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে প্রদ্যুৎবাবু ৩১ মার্চ সল্টলেকের বেসরকারি হসপিটালে ভর্তি হন। হার্টের একটি ধমনীতে ব্লক ধরা পড়ে। হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ রঞ্জন শর্মা অ্যাঞ্জিওপ্ল্যাস্টি করে স্টেন্ট বসান। চিকিৎসার জন্য ৬৬ হাজার টাকা এবং স্টেন্টের জন্য ৩১,৬৮৯ টাকা মিলিয়ে মোট ৯৭,৬৮৯ টাকার বিল হয়। পুরো বিলের খরচ তিনি স্বাস্থ্য সাথী কার্ডের মাধ্যমে মিটিয়ে দেন। এরপর ১ এপ্রিল বিকেলে ছুটি পেয়ে বাড়িতে ফেরেন তিনি।

এই বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু বলেছেন, মিঠুন চক্রবর্তীর ছায়াসঙ্গী বলেই প্রদ্যুৎবাবু স্বাস্থ্যসাথীর সুবিধা পেয়েছেন। কিন্তু অনেকেই আছেন, যাঁরা এই কার্ডের সুবিধা থেকে বঞ্চিত।

Comments
Loading...