নাগরিকত্ব থেকে ৫ টাকায় ভরপেট খাওয়া, ইশতেহারে প্রতিশ্রুতি BJP র

ক্ষমতায় এলে প্রথম কেবিনেট বৈঠকেই সিএএ কার্যকর করা হবে, রাজ্যে ৩ টি এইমস, অন্নপূর্ণা ক্যান্টিনে ৫ টাকায় ৩ বেলা খাওয়া, লাগু হবে সপ্তম বেতন কমিশন। পাশাপাশি ৩ টাকায় নুন, ৫ টাকায় চিনি, ৩০ টাকায় ডাল। ১৮ বছর হলেই মেয়েদের ২ লক্ষ টাকা। রবিবার সন্ধ্যায় ইশতেহার প্রকাশ করেন অমিত শাহ। ইশতেহারের নাম সোনার বাংলা সংকল্প পত্র।

ইশতেহারে বিজেপির প্রতিশ্রুতি বিজেপি সরকার মেয়েদের ১৮ বছর হলেই ২ লক্ষ টাকা দেবে। এই প্রকল্পের নাম দেওয়া হয়েছে ‘বালিকা আলো’। সেখানে কেজি থেকে স্নাতকোত্তর পর্যন্ত মেয়েরা পড়াশোনা করতে পারবেন বিনামূল্যে। স্কুল ছাত্রীরা ষষ্ঠ শ্রেণিতে উঠলেই বছরে ৩ হাজার টাকা করে পাবেন। আর নবম শ্রেণিতে ৫ হাজার টাকা। একাদশ শ্রেণিতে ৭ হাজার টাকা করে দেওয়া হবে ছাত্রীদের। চাকরির ক্ষেত্রেও মহিলাদের জন্য থাকছে বিশেষ সুবিধা। সেখানে বলা হয়েছে, মহিলাদের জন্য সরকারি চাকরিতে ৩৩ শতাংশ সংরক্ষণের ব্যবস্থা থাকবে। সরকারি বাসে মহিলারা বিনামূল্যে যাতায়াত করতে পারবেন বলে প্রতিশ্রুতি বিজেপির ইশতেহারে।

[আরও পড়ুন- আমি একটা বড়ো গাধা, বুঝতেই পারিনি এদের এত গুণ! কাঁথিতে দাঁড়িয়ে অধিকারীদের তোপ Mamata-র]

রাজ্য পুলিশে ৯টি মহিলা ব্যাটেলিয়ন তৈরির আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। রাজ্য রিজার্ভ পুলিশ বাহিনীতে ৩টি মহিলা ব্যাটালিয়ন করা হবে। প্রতিটি থানায় মহিলাদের জন্য আলাদা হেল্প ডেস্ক থাকবে। যার দায়িত্বে থাকবেন মহিলারাই।

তফসিলি ও অনগ্রসর শ্রেণির পরিবারে মেয়ে সন্তান জন্ম নেওয়ার পরেই ৫০ হাজার টাকার বন্ড দেবে বিজেপি ক্ষমতায় এলে। এই শ্রেণির পরিবারের মহিলাদের জন্য ১ লক্ষ টাকার ফিক্সড ডিপোজিট দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে। এই প্রকল্পের নাম ঘরে লক্ষ্মী যোজনা। ১৮ বছর বয়সের পরে বিবাহ হলেই এই সুবিধা পাবে মেয়েরা। মহিলাদের এককালীন ২০ হাজার টাকা করে ঋণও দেবে সরকার। রাজ্যে বিধবা ভাতা মাসিক ১ হাজার থেকে বাড়িতে ৩ হাজার টাকা করার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে ইশতেহারে। প্রসূতিদের জন্য ৫ হাজার টাকা দেয় তৃণমূল সরকার। সেটা বাড়িয়ে ৯ হাজার টাকা করার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে ইশতেহারে।

ইশতেহারে পিএম কিষাণ সম্মান নিধি প্রকল্পে কৃষকদের ৩ বছরে ১৮ হাজার টাকা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে। ৭৫ লক্ষ কৃষককে বছরে ১০ হাজার টাকা করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে। মৎস্যজীবীদের বছরে ৬ হাজার টাকা করে অনুদান দেওয়া হবে।
৩ টাকায় নুন, ৫ টাকায় চিনি, ৩০ টাকায় ডাল পাওয়া যাবে রেশনে। এছাড়া রাজ্যের সর্বত্র অন্নপূর্ণা ক্যান্টিনে ৫ টাকায় ৩ বেলা খাবার পাওয়া যাবে। ১০০ দিনের কাজ বাড়িয়ে ২০০ দিন করা হবে। ক্ষুদ্র এবং কুটির শিল্পের জন্য বিদ্যুৎ ছাড় দেওয়ার প্রতিশ্রুতি সহ চা শ্রমিকদের দৈনিক ৩৫০ টাকা মজুরির আশ্বাস দেওয়া হয়েছে ইশতেহারে।
কিন্তু প্রশ্ন হল, অর্থের বন্দোবস্ত হবে কোথা থেকে? অমিত শাহের জবাব, আমি বানিয়া। সব হিসেব করেই প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে।

Comments
Loading...