পড়ুয়া-শিক্ষাকর্মীদের অবিলম্বে টিকাকরণ শেষ করতে হবে; জেলাশাসক, স্বাস্থ্য আধিকারিকদের নির্দেশ নবান্নের 

 মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছিলেন করোনার তৃতীয় ঢেউ ভয়ঙ্কর না হলে পুজোর পরেই স্কুল কলেজ খোলা হতে পারে। এবার সেইমতো তোড়জোড় শুরু করল নবান্ন। 

কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়, উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সমস্ত পড়ুয়া, শিক্ষক, শিক্ষাকর্মীদের যাতে দ্রুত ভ্যাকসিন দেওয়া যায় এই মর্মে সমস্ত জেলাশাসক এবং মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিকদের নির্দেশ পাঠানো হয়েছে। বৃহস্পতিবার নবান্ন থেকে নির্দেশ পাঠানো হয়। স্বাস্থ্য দফতর এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠান যৌথ উদ্যোগে এই কর্মসূচি করবে। স্বাস্থ্য দফতরকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে কলেজ, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলির সঙ্গে যোগাযোগ করে ভ্যাকসিন ক্যাম্পের স্থান, তারিখ নির্ধারণ করতে। সেরকম হলে, কলেজ ক্যাম্পাসেই যেন ক্যাম্পের আয়োজন করা যায়। 

রাজ্যের স্কুল কলেজ খোলার দাবি নিয়ে ইতিমধ্যেই একাধিক সংগঠন সোচ্চার হয়েছে। বাম ছাত্র সংগঠনগুলির তরফে এই নিয়ে একাধিকবার বিক্ষোভ দেখানো হয়েছে। সম্প্রতি এসএফআইয়ের তরফে দাবি করা হয়, দুরুত্ববিধি বজায় রাখতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মাঠে, সামনের বারান্দায় বা সেরকম হলে রাস্তায় ক্লাস করানো হোক। প্রয়োজনে সপ্তাহে অন্তত দু’দিন স্কুল কলেজ খোলা হোক। বাম ছাত্র সংগঠনগুলির দাবি, দীর্ঘ দিন স্কুল কলেজ বন্ধ থাকায় স্কুল ছুট ছাত্র ছাত্রীরা সংখ্যা বাড়ছে। সেক্ষত্রে অবিলম্বে স্কুল খোলার ব্যবস্থা করা হোক। 

Comments
Loading...