মোদীর সঙ্গে মহিলার ভুয়ো ছবি! কেন্দ্রীয় প্রকল্পের গুণগান করতে গিয়ে চরম বিড়ম্বনা

লক্ষী দেবীর ছবি কেন্দ্রীয় সরকারের বিজ্ঞাপনে অথচ তিনি নিজে জানেন না!

সংবাদপত্রে হাসিমুখে লক্ষীদেবী এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ছবি। নিচে লেখা প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় পাকা বাড়ি পেয়েছেন তিনি। শুধু তিনি নন তাঁর সঙ্গে আরও ২৪ লক্ষ ভারতবাসীও নাকি এই প্রকল্পে মাথার উপর পাকা ছাদ পেয়েছেন!
কিন্তু ছবি দেখে লক্ষী দেবী অবাক! বউবাজারে ছোট্ট ঝুপড়ির বাসিন্দা লক্ষীদেবী নিজে এ খবর জানতে পেরেছেন সংবাদপত্রে। আদতে পাকা তো দূর অস্ত তিনি কোনও ঘরই পাননি। মাসে মাসে ৫০০ টাকা ভাড়া দিয়ে থাকতে হয় এক চিলতে ঝুপড়িতে।
রবিবার তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন একটি ভিডিও ট্যুইট করেন। যাতে দেখা যাচ্ছে newslaundry পোর্টালের সাংবাদিক মনীষা পাণ্ডে লক্ষীদেবীর ঝুপড়ি ঘরে বসে তাঁর ইন্টারভিউ করছেন। সাক্ষাৎকারে লক্ষীদেবী জানিয়েছেন, তিনি আদৌ ঘর পাননি। পরিবারকে নিয়ে বউবাজারের এক কামরার ভাড়া বাড়িতে থাকতে হয়। ঘরের মধ্যে জায়গা এতটাই অল্প যে রাতে শুধুমাত্র পরিবারের মেয়েরাই ঘরে ঘুমোন। ছেলেরা কেউ ফুটপাথে, কেউ রিকশা ভ্যানে মশারি খাটিয়ে রাত কাটান। ব্যবহার করেন রাস্তার সুলভ টয়লেট।

এহেন লক্ষী দেবীর ছবি কেন্দ্রীয় সরকারের বিজ্ঞাপনে অথচ তিনি নিজে জানেন না! পেশায় দিনমজুর লক্ষীদেবী জানান, ফেব্রুয়ারি মাসে তিনি বাবুঘাটে কাজ করেছিলেন। তখনই তাঁর ছবি তোলা হয়। বিজ্ঞাপনের ছবিটি সেই ছবি হতে পারে।
সাংবাদিক আর একবার জিজ্ঞেস করলেন তাহলে আপনি ঘর পাননি? উত্তরে নুন আনতে পান্তা ফুরনো লক্ষীদেবী বলছেন, ভোট আসছে যে!

[আরও পড়ুন- দেশের শত্রু BJP, কোন মুখে ভোট চাও! CPM নেতার বাড়ি গিয়ে শুনলেন BJP প্রার্থী]

ভিডিওটি প্রকাশিত হওয়ার পরে বিজেপি নেতারা জানান, বিজ্ঞাপনের বিষয়টি কেন্দ্রীয় সরকারের অফিসাররা দেখেন, তাঁরা এবিষয়ে কিছু বলতে পারবেন না। রাজ্য বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য বলেন, তিনি পুরো ঘটনা জানেন না, তাই মন্তব্য করতে পারবেন না। ভিডিওটি প্রকাশিত হওয়ার পরেই বিরোধীরা তীব্র কটাক্ষ করেছে বিজেপিকে।
কিন্তু প্রশ্ন উঠছে, সংবাদপত্রের বিশাল জায়গায় বিজ্ঞাপনে কেন মিথ্যে ছবি ব্যবহার করতে হচ্ছে? কেনই বা প্রধানমন্ত্রীর ছবির পাশে এমন একজনের ছবি দেওয়া হচ্ছে যিনি সেই সুবিধা থেকেই বঞ্চিত! কার গাফিলতিতে এমন ভুল? উত্তর মেলেনি।

Comments
Loading...