২০১৪ থেকে বিজেপির সঙ্গে যোগাযোগ, মমতাদিকে ১ বছর আগে বলেছি, বোঝাতে পারিনি: কল্যাণ

বিজেপির সঙ্গে বহু আগে থেকেই তলে তলে যোগাযোগ রাখছিলেন শুভেন্দু অধিকারী। এই কথাটাই আমি মমতাদিকে বোঝাতে পারিনি, এটাই আমার দুঃখ। শুভেন্দু অধিকারীর মন্তব্য নিয়ে পাল্টা তোপ দাগলেন তৃণমূল মুখপাত্র তথা সাংসদ কল্যাণ ব্যানার্জি। 

শনিবার মেদিনীপুর কলেজ মাঠে অমিত শাহের থেকে গেরুয়া পতাকা হাতে তুলে নেন শুভেন্দু অধিকারী। তাঁর সঙ্গে অমিত শাহের সম্পর্ক যে অনেক পুরনো তা বোঝাতে গিয়ে শুভেন্দু বলেন, ২০১৪ সালে অমিত শাহের সঙ্গে তাঁর যোগাযোগ করিয়ে দেন আরেক বিজেপি নেতা সিদ্ধার্থনাথ সিংহ। এবার শুভেন্দুর এই মন্তব্য নিয়েই পাল্টা আক্রমণের রাস্তায় গেল তৃণমূল। 

শনিবার মেদিনীপুরের সভা শেষ হতেই কলকাতায় সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন কল্যাণ ব্যানার্জি। সেখানে তাঁর অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরে শুভেন্দু বিজেপির সঙ্গে যোগাযোগ রাখছিলেন। তারপর তৃণমূলের লোকসভার চিফ হুইপ কল্যাণ বলেন, এই কথাটাই আমি মমতাদিকে বোঝাতে পারিনি। সেটাই আমার দুঃখ। গতবছর ডিসেম্বর মাসে বিজেপির একজন সাংসদ আমাকে এসএমএস দেখিয়েছিল। যেখানে শুভেন্দু বারবার লিখেছেন, তিনি অমিত শাহের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে চান। কল্যাণের দাবি সেই সাংসদ তাঁকে জানান, অমিত শাহ শুভেন্দুর সঙ্গে দেখা করতে চান না। কারণ শুভেন্দুর অতিরিক্ত উচ্চাকাঙ্ক্ষা এবং লোভ। তারপর কল্যাণ ব্যানার্জি বলেন, আমি এক বছর আগে এটা বলেছিলাম কিন্তু আমার কথা কেউ বিশ্বাস করেনি।

কল্যাণ ব্যানার্জি বলেন, লোকসভায় শুভেন্দু যে যে জেলার দায়িত্বে ছিলেন সেখানে দলের ফল খারাপ হয়েছে। তার মানে শুভেন্দু অধিকারী সাবোটাজ করেছেন। তাঁর দাবি, শুভেন্দুর কর্মকাণ্ড দল বুঝে ফেলায় পর্যবেক্ষক পদ তুলে দেওয়া হয়। কল্যাণ ব্যানার্জি বলেন, এবার বুঝুন, যদি সেই পদ তোলা না হত তাহলে ২০২১ ভোটের আগে শুভেন্দু অধিকারী পার্টিকে কত বড়ো ছুরি মারতেন!    

Comments
Loading...