ফের বিশ্বের দরবারে বাজিমাত বাংলার, রাষ্ট্র সংঘের প্রতিযোগিতায় সেরা পাঁচে ‘উৎকর্ষ বাংলা’

ফের বিশ্বের দরবারে সমাদৃত হল বাংলা। ‘কন্যাশ্রী’র পর এবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মস্তিষ্কপ্রসূত ‘উৎকর্ষ বাংলা’ প্রকল্প রাষ্ট্র সংঘের চ্যাম্পিয়ন প্রজেক্টের শিরোপা পেল। সারা বিশ্বের ১৪৩টি প্রকল্পের মধ্যে সেরা পাঁচে জায়গা করে ফাইনালে উঠেছে ‘উৎকর্ষ বাংলা’। আগামী ৯ই এপ্রিল সদর দফতর জেনেভাতে সেরা পাঁচটি প্রকল্পকে পুরস্কৃত করা হবে।
সূত্রের খবর, ‘উৎকর্ষ বাংলা’ প্রকল্প রাষ্ট্র সংঘের ‘চ্যাম্পিয়ন প্রজেক্টের’ তালিকায় ঠাঁই পাওয়ায় ঘনিষ্ঠ মহলে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
পশ্চিমবঙ্গের বেকার যুবক-যুবতীদের কর্মোপযোগী করে তুলে দক্ষতাবৃদ্ধির মাধ্যমে কর্মসংস্থানের লক্ষ্যে ২০১৬ সালের ১৬ই ফেব্রুয়ারি ‘উৎকর্ষ বাংলা’ প্রকল্পটি চালু হয়। এই প্রকল্পের দেখভালের দায়িত্ব দেওয়া হয় পশ্চিমবঙ্গ সোসাইটি ফর স্কিল ডেভেলপমেন্ট (পিবিএসএসডি)-কে। পিবিএসএসডি সূত্রে জানা গিয়েছে, ‘উৎকর্ষ বাংলা’ প্রকল্পের সঙ্গে ভারতের পাঁচশোরও বেশি সংস্থা ও প্রতিষ্ঠান যুক্ত হয়েছে। ২০১৮ সালে এই প্রকল্পের মাধ্যমে ৭ হাজার ৫০০ জন যুবক-যুবতী প্রশিক্ষণ নিয়ে চাকরি পেয়েছেন।
বিভিন্ন দেশের জনমুখী প্রকল্পকে নিয়ে ২০০৩ সাল থেকে একটি প্রতিযোগিতামূলক অনুষ্ঠান শুরু করেছে রাষ্ট্র সংঘের সংস্থা আইটিইউ। মোট ১৮ টি ক্যাটাগরির মধ্যে ‘ক্যাপাসিটি বিল্ডিং’ বা ‘দক্ষতা বৃদ্ধি’ বিভাগে অংশ নেয় এ রাজ্যের ‘উৎকর্ষ বাংলা’ প্রকল্প। বিভিন্ন দেশ থেকে ১ হাজার ৬২ টি আবেদন জমা পড়ে এই বিভাগে। অনলাইনে ভোট পড়ে ২০ লক্ষেরও বেশি। ‘উৎকর্ষ বাংলা’ প্রকল্পটি যে বিভাগে অংশ নিয়েছিল সেই ক্যাপাসিটি বিল্ডিংয়ে সারা বিশ্ব থেকে জমা পড়েছিল ১৪৩ টি প্রকল্প। ভোটের মাধ্যমে এই প্রকল্পগুলি থেকে সেরা পাঁচটি প্রকল্পকে ‘চ্যাম্পিয়ন প্রজেক্ট’ হিসেবে নির্বাচন করেছে রাষ্ট্র সংঘের ডব্লুএসআইএস। আর তাতে ঠাঁই পেয়েছে এরাজ্যের ‘উৎকর্ষ বাংলা’।

Comments
Loading...