‘নম্বর ওয়ান মে ডালো মত’ থেকে ‘বিজেপি কুছ ভি দে সকতি হ্যায়’, কোবরা পোস্টের স্টিং অপারেশনে ফাঁস বলিউড তারকাদের আসল চেহারা

ভারতে বলিউডের প্রভাব বিশাল। বিজ্ঞাপন হোক বা জনস্বার্থ, বলিউড সেলেব্রিটি মানেই তা আলাদা করে নজর কাড়ে জনতার। সেলেবরাও ভালো করে জানেন, তাঁদের একটি ভিডিও মেসেজ বা সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি পোস্ট কতটা প্রভাব ফেলতে পারে জনমানসে। এই প্রেক্ষিতেই এবার কোবরা পোস্টের প্রতিবেদনে বেআব্রু হয়েছে বলিউড। একটি জনসংযোগ সংস্থার প্রতিনিধি সেজে ‘কোবরা পোস্টের’ সাংবাদিকরা কয়েকজন বলিউডের তারকার কাছে যান। ‘অপারেশন কারাওকে’তে লোকসভা ভোটের মুখে বিশেষ কোনও রাজনৈতিক দলের হয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচারমূলক পোস্ট করার জন্য অফার দেওয়া হয় মোট ৩৬ জন তারকাকে। বদলে মিলবে নগদ টাকা। এবার এক ঝলকে জেনে নিন, ‘অপারেশন কারাওকে’তে তারকারা কে কী বললেন।
অভিনেত্রী মিনিশা লাম্বা জানান, লোকসভা নির্বাচনের আগে যে কোনও রাজনৈতিক দলের হয়ে প্রচার করতে রাজি তিনি। কিন্তু এরজন্য পুরো ‘পারিশ্রমিক’ দিতে হবে নগদ টাকায়। অন্তত ২০ শতাংশ টাকা হোয়াইট মানিতে দেওয়া হবে শুনেই বেঁকে বসেন ‘হানিমুন ট্রাভেলস’ সিনেমার অভিনেত্রী।
যে শক্তি কাপুর মোদী সরকারের নোটবন্দির সিদ্ধান্তের তারিফ করেছিলেন, তিনিও প্রচারের টাকা নেওয়ার জন্য কোবরা পোস্টের সাংবাদিককে জানিয়ে দেন ”নাম্বার ওয়ান মে ডালো মাত।” (এক নম্বরে দিও না…)
কোবরা পোস্টের প্রতিবেদন অনুযায়ী, কয়েকজন বলিউড সেলেব তাঁদের ম্যানেজারকে সরিয়ে নিজেরাই ‘পারিশ্রমিক’ নিয়ে আলোচনা সেরেছেন। ‘পরদেশ’ খ্যাত নায়িকা মহিমা চৌধুরী প্রত্যেক মেসেজের জন্য ১ কোটি টাকা দাবি করেন। মহিমার কথায়, ”বিজেপি তো কুছ ভি দে সকতি হ্যায়” (বিজেপি তো যে কোনও মূল্য দিতে পারে)
অভিনেতা সোনু সুদ দাবি করেন, সোশ্যাল মিডিয়ায় তাঁর মেসেজ অন্যদের চেয়ে ঢের জোরালো। তাই প্রত্যেক মাসে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচার চালানোর জন্য তিনি পারিশ্রমিক হাঁকেন আড়াই কোটি টাকা। অপারেশন ক্যারাওকে-তে বিজেপির হয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচার চালাতে রাজি হওয়া অভিজিৎ ভট্টাচার্য বলেন, ট্র্যাফিক সিগন্যালে গাড়ি আটকে থাকার সময় বা কোনও কফিশপে বসে প্রচার চালালে তার গ্রহণযোগ্যতা বাড়বে। করেন বেশকিছু বিতর্কিত মন্তব্যও।
কোবরা পোস্টের প্রতিবেদনে প্রকাশ, অভিনেতা জ্যাকি শ্রফ জানান, তিনি সাম্প্রদায়িকতার বিরোধী, তবু স্রোতের সঙ্গে তো ভাসতেই হবে। কত টাকা চান, এর উত্তরে অভিনেতার নাটকীয় প্রত্যুত্তর, ”ম্যায় মেরা দিল কা দরওয়াজা খোল রাহা হুঁ, তু তিজোরি কা দরওয়াজা খুলনে কে লিয়ে পুছ রহে হো মেরেকো” (আমি মনের দরজা খুলছি, আর তুই আলমারির দরজা খোলার কথা বলছিস)। অভিনেত্রী সানি লিওন অবশ্য টাকা চাননি বলে প্রকাশ কোবরা পোস্টের ওই প্রতিবেদনে। টাকার বদলে সানির আবেদন, স্বামী ড্যানিয়লকে ভারতীয় নাগরিকত্ব দিতে রাজি হলেই তিনি সাগ্রহে নরেন্দ্র মোদী ও বিজেপির হয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচার চালাবেন।

অবশ্য ব্যতিক্রমও আছে। যেমন ‘মুন্নাভাই’ খ্যাত আরশাদ ওয়ারসি, অভিনেতা রাজা মুরাদ বা বিদ্যা বালানরা। অভিনেতা রাজা মুরাদকে সোশ্যাল মিডিয়ায় অ্যাকাউন্ট খুলে রাজনৈতিক প্রচারের জন্য অফার দেওয়া হলে, তিনি রাজি হননি বলে কোবরা পোস্ট জানিয়েছে। রাজা মুরাদ জানান, ”নেহি মুঝে নেহি খোলনা ট্যুইটার” (আমার ট্যুইটার অ্যাকাউন্ট খোলার দরকার নেই)। অভিনেতা আরশাদ ওয়ারসির ম্যানেজারের সঙ্গে এবিষয়ে যোগাযোগ করেন কোবরা পোস্টের সাংবাদিক। আরশাদের ম্যানেজার জানান, রাজনৈতিক প্রচার করতে রাজি নন আরশাদ ওয়ারসি। আরেক অভিনেত্রী ‘ভাবিজি ঘর পে হ্যায়’ সিরিয়াল খ্যাত সৌম্যা ট্যান্ডনের সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করেন কোবরা পোস্টের সাংবাদিক। সৌম্যা ট্যান্ডনও এই প্রস্তাব ফিরিয়ে দেন। তিনি বলেন, ”ম্যায় কিসি ভি পার্টি সে কোই ভি অ্যাফিলিয়েশন পার্সোনাল কে লিয়ে নেহি করনা চাহাতা, কিঁউকি স্যার ইয়ে মেরে সিদ্ধান্ত কে খিলাফ হ্যায়” (আমি কোনও রাজনৈতিক দলের জন্য রাজনৈতিক প্রচার করতে চাইনা, এটা আমার মতের পরিপন্থী)। সৌম্যা ট্যান্ডন আরও বলেন, ”বহুত সারে অ্যাক্টরস আপকো পেয়সে কে লিয়ে বহুত কুছ করতে নজর আয়েঙ্গে…” (অনেক অভিনেতা পেয়ে যাবেন যাঁরা টাকার জন্য সব কিছু করতে পারেন)।

Comments
Loading...