পঞ্চম দফায় ভোট জলপাইগুড়ির ৭ আসনে, ২০১৬ আর ‘১৯ এর ভোটে কী ফলাফল ছিল?

জলপাইগুড়ি জেলায় মোট ৭ টি বিধানসভা আসন। পঞ্চম দফায় ভোটগ্রহণ হবে ৭ আসনেই। ধূপগুড়ি, ময়নাগুড়ি, জলপাইগুড়ি, রাজগঞ্জ, ডাবগ্রাম-ফুলবাড়ি, মাল, নাগরাকাটা কেন্দ্রে ভোট।

একনজরে দেখে নেব ১৬ আর ১৯’ এ এই কেন্দ্রগুলিতে কী ফল ছিল?

ধুপগুড়ি বিধানসভা কেন্দ্রে ২০১৬ সালে তৃণমূলের মিতালি রায় (৯০,৭৮১) হারান সিপিএমের মমতা রায়কে (৭১,৫১৭)। কিন্তু ২০১৯ সালের লোকসভায় দেখা যায় বিজেপি প্রার্থী এই কেন্দ্রে এগিয়ে প্রায় ১২ হাজার ভোটে।
একুশের ভোটে এই কেন্দ্রে বিজেপির টিকিটে লড়াই করছেন বিষ্ণুপদ রায়। তৃণমূল প্রার্থী করেছে মিতালী রায়কেই। সিপিএম প্রার্থী করেছে প্রদীপকুমার রায়কে।

২০১৬ সালে ময়নাগুড়ি বিধানসভা আসনে তৃণমূলের অনন্তদেব অধিকারী ৩৫ হাজারের বেশি ব্যবধানে আরএসপি প্রার্থীকে হারান। ২০১৯ সালের লোকসভায় ময়নাগুড়ি বিধানসভা কেন্দ্রে ১৪ হাজার ভোটে এগিয়ে বিজেপি।
এই ভোটে বিজেপি প্রার্থী কৌশিক রায়। তৃণমূল প্রার্থী মনোজ রায়। সিপিএমের নরেশচন্দ্র রায়।

জলপাইগুড়ি সদর বিধানসভা আসনে ২০১৬ সালে জয় পান কংগ্রেসের সুখবিলাস বর্মা। ৪ হাজারের বেশি ভোটে হারেন তৃণমূলের ধর্তিমোহন রায়। ২০১৯ সালে জলপাইগুড়ি লোকসভার অন্তর্গত জলপাইগুড়ি সদর বিধানসভা আসনে বিজেপির লিড ছিল প্রায় ৪০ হাজার ভোটের।
এই কেন্দ্রে এবারও কংগ্রেস প্রার্থী করেছে সুখবিলাস বর্মাকে। তৃণমূলের প্রার্থী ডাক্তার প্রদীপ কুমার বর্মা আর বিজেপির প্রার্থী সুজিত সিনহা।

রাজগঞ্জ বিধানসভা আসনে ২০১৬ সালে তৃণমূল প্রার্থী খগেশ্বর রায় (৮৯,৭৮৫) হারান সিপিএমের সত্যেন্দ্রনাথ মণ্ডলকে (৭৫,১০৮)। ২০১৯ সালে এই কেন্দ্রে ৪ হাজারের বেশি ভোটে এগিয়ে তৃণমূল।
এবারও তৃণমূল প্রার্থী খগেশ্বর রায়। বিজেপির সুপেন রায়। সিপিএম প্রার্থী রতন রায়।

২০১৬ সালের বিধানসভা ভোটে ডাবগ্রাম-ফুলবাড়ি কেন্দ্রে জয় লাভ করেন তৃণমূলের গৌতম দেব। দ্বিতীয় স্থানে ছিলেন বাম প্রার্থী দিলীপ সিংহ। তৃতীয় স্থানে ছিলেন বিজেপি প্রার্থী। ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি প্রার্থী পর্যটনমন্ত্রীর কেন্দ্রে এগিয়ে ৮৬ হাজার ভোটে।
এই ভোটে এই কেন্দ্রে সিপিএম প্রার্থী দিলীপ সিং। তৃণমূলের গৌতম দেবই। বিজেপির টিকিটে লড়াই করছেন শিখা চ্যাটার্জি।

মাল আসনে ২০১৬ সালে তৃণমূল প্রার্থী বুলু চিক বরাইক (৮৪,৮৭৭) ভোটে সিপিএম প্রার্থী অগাস্টাস কেরকেট্টাকে (৬৬,৪১৫) হারান। বিজেপি প্রার্থী পেয়েছিলেন ২৯,৩৮০ টি ভোট। ২০১৯ সালের লোকসভায় এই কেন্দ্রে বিজেপি এগিয়ে ২৪ হাজার ভোটে।
একুশের ভোটে মাল কেন্দ্রে তৃণমূল ভরসা রেখেছে বুলু চিক বরাইকের ওপর। বিজেপির টিকিটে লড়ছেন মহেশ বাগে। মনু ওরাঁওকে প্রার্থী করেছে সিপিএম।

নাগরাকাটা বিধানসভায় ২০১৬ সালে জয় পেয়েছিলেন তৃণমূলের শুক্রা মুন্ডা (৫৭,২০১)। দ্বিতীয় কংগ্রেসের জোসেফ মুন্ডা (৫৩,৯২৮), তৃতীয় বিজেপির জন বার্লা (৪৭,৭৯৩)। আবার ২০১৯ লোকসভা ভোটে বিজেপির জন বার্লা এই কেন্দ্রে এগিয়ে প্রায় ৫০ হাজার ভোটে।
এবার এই কেন্দ্রে তৃণমূলের প্রার্থী জোসেফ মুন্ডা। পুনা ভেংরাকে প্রার্থী করেছে বিজেপি। সংযুক্ত মোর্চা মনোনীত কংগ্রেস প্রার্থী সুখবীর সুব্বা।

Comments
Loading...