রাজ্য-রাজ্যপাল সংঘাতে এবার অবতীর্ণ হলেন অভিষেক ব্যানার্জি। মুখ্যমন্ত্রীকে লেখা জগদীপ ধনকড়ের চিঠিতে বাংলা নেই কেন, এই প্রশ্ন তুলে বিজেপি হিন্দিভাষীদের দল, পরোক্ষে সেই বিতর্ক উস্কে দিলেন।
সোশ্যাল মিডিয়ায় রাজ্য সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপের বিরোধিতা করে রাজ্যপাল ধনকড়ের একের পর এক ট্যুইট সাম্প্রতিক সময়ে বিতর্কের সৃষ্টি করেছে। পাশাপাশি বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে রাজ্যপালের নবান্ন বিরোধিতাও নজর এড়ায়নি সরকারের। এই প্রেক্ষিতে রাজ্যে অশান্তির বাতাবরণ কাটাতে রাজ্য প্রশাসনের সঙ্গে সহযোগিতার আবেদন জানিয়ে সোমবার রাজভবনে চিঠি পাঠান মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। যার জবাবও দিয়েছেন রাজ্যপাল ধনকড়।
মুখ্যমন্ত্রীর চিঠির প্রেক্ষিতে রাজ্যপালের জবাব নিয়েই এবার ট্যুইট করলেন তৃণমূল সাংসদ অভিষেক ব্যানার্জি। সোমবার রাত সাড়ে ৯ টা নাগাদ ডায়মন্ড হারবারের সাংসদ ট্যুইট করে প্রশ্ন তোলেন, বাংলার রাজ্যপালের চিঠিতে কেন থাকবে না বাংলার ব্যবহার? রাজ্যপালের জবাবি চিঠিতে দেখা যাচ্ছে সেখানে হিন্দি এবং ইংরেজিতে পদের নাম লেখা থাকলেও অনুপস্থিত বাংলা। যুব তৃণমূল সভাপতির ট্যুইটে সেই প্রশ্নই তোলা হয়। ট্যুইটের শেষ অংশে অভিষেক ব্যানার্জি বাংলায় ঠিক কী লিখতে হবে তাও জানিয়ে দেন।

অভিষেক ব্যানার্জির ট্যুইটের ১০ মিনিটের মধ্যে রাজ্যপাল ধনকড় ফের ট্যুইট করেন। সেখানে তিনি অভিষেক ব্যানার্জির পরামর্শের প্রশংসা করে লেখেন, অত্যন্ত দ্রুত পরামর্শ বাস্তবায়নের নির্দেশ তিনি পত্রপাঠ দিয়েছেন। পরবর্তীতে অভিষেকের কাছে রাজভবনের তরফে যে চিঠি যাবে তাতে এই সমস্যা কাটিয়ে ওঠা হবে বলেও জানান ধনকড়।

রাজ্যপালের এই ট্যুইটেরও উত্তর দিয়েছেন তৃণমূলের যুব সভাপতি। তিনি জানান, দ্রুত উত্তরের জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি, ভেবেই ভালো লাগছে তাঁর ট্যুইটের জেরেই বাংলার রাজ্যপাল লেটার হেডে বাংলা ব্যবহারের উদ্যোগ নিলেন। এই ট্যুইটটি আগাগোড়া ইংরেজিতে লেখা হলেও শেষে অভিষেক ব্যানার্জি বাংলায় লিখেছেন জয় হিন্দ এবং জয় বাংলা।

এদিকে এই বিতর্কে নয়া মাত্রা যোগ করেছেন তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন। সোমবার রাতে একটি ট্যুইটে তিনি রাজ্যপালের সঙ্গে ভাঁড়ের তুলনা করেন এবং জিজ্ঞেস করেন, বলুন তো কে?

বিজেপি বাঙালি বিরোধী। বারবার মমতা সহ তৃণমূল নেতারা একথা বলছেন। পাশাপাশি, তাঁদের অভিযোগ, রাজ্যপাল যেভাবে পদে পদে প্রশাসনিক কাজে বাধা দিচ্ছেন, তাতে তাঁর রাজনৈতিক আনুগত্যের দিকটি প্রকাশ্যে চলে আসছে। যা রাজ্যপালের পদের সঙ্গে মানানসই নয় বলেই মনে করছে তৃণমূল শীর্ষ নেতৃত্ব। এই পরিস্থিতিতে বাংলার রাজ্যপালের লেটার হেডে কেন বাংলা থাকবে না, সেই বুনিয়াদি প্রশ্ন তুলে গোটা বিতর্কে নয়া মাত্রা যোগ করলেন অভিষেক ব্যানার্জি।

ধারাবাহিকভাবে পাশে থাকার জন্য The Bengal Story র পাঠকদের ধন্যবাদ। আমরা যে ধরনের খবর করি, তা আরও ভালোভাবে করতে আপনাদের সাহায্য আমাদের উৎসাহিত করবে।

Login Support us

You may also like

IBM Lay Off
COVID 19 Vaccine Human Trial At Oxford