আগ্রার হাসপাতালে অক্সিজেন বন্ধ করে মক ড্রিল! ২২ জনের মৃত্যুর অভিযোগের তদন্ত শুরু

উত্তরপ্রদেশের আগ্রায় এক বেসরকারী হাসপাতালে অক্সিজেনের অভাবে ২২ জন রোগী মৃত্যুর অভিযোগ ঘিরে তোলপাড়। গত ২৬ এপ্রিল আগ্রার পারশ হাসপাতালে ৫ মিনিটের জন্য অক্সিজেন সরবরাহ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। সেইসময় অক্সিজেন না পেয়ে ছটফট করতে করতে ২২ জন রোগীর মৃত্যু হয়। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া ভিডিও ক্লিপে এমনই দাবি করতে শোনা যাচ্ছে ওই হাসপাতালের কর্ণধারকে। ভিডিও প্রকাশ্যে আসার পরই তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে উত্তরপ্রদেশ সরকার। সিল করে দেওয়া হয়েছে পারশ হাসপাতাল।

সম্প্রতি ওই হাসপাতালের মালিক অরিঞ্জয় জৈনের কথপোকথনের একটি অডিও ভাইরাল হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়। সেখানে তাঁর দাবি, উত্তরপ্রদেশ জুড়ে অক্সিজেনের হাহাকারের মধ্যে অক্সিজেনের অভাবে মক ড্রিল করা হয়। কোন রোগী অক্সিজেনের অভাবে বেঁচে থাকতে পারে আর কার মৃত্যু হতে পারে তা দেখার জন্য ৫ মিনিটের মধ্যে আশঙ্কাজনক রোগীদের অক্সিজেন সরবরাহ বন্ধ করে মক ড্রিল করা হয়। ভাইরাল হওয়া ক্লিপের সত্যতা যাচাই করেনি The Bengal Story.

ভাইরাল হওয়া ভিডিওয় পারশ হাসপাতালের কর্ণধারকে আরও বলতে শোনা যায়, আমাদের বলা হয়েছিল মুখ্যমন্ত্ৰী অক্সিজেন সরবরাহ করতে পারছেন না। রোগীদের হাসপাতাল ছাড়তে বলার নির্দেশ এসেছিল। কিন্তু রোগীরা হাসপাতাল ছাড়তে চাননি। তারপরই ২৬ এপ্রিল সকালে ৫ মিনিটের জন্য অক্সিজেন সরবরাহ বন্ধ রাখা হয়।

ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে উত্তরপ্রদেশ প্রশাসন। হাসপাতালটিকে সিল করে দেওয়া হয়েছে। হাসপাতালের মালিকের দাবি, ভিডিওয় তাঁর বক্তব্যের ভুল অর্থ করা হয়েছে। যদিও ভিডিওর সত্যতা অস্বীকার করেননি আগ্রার পারশ হাসপাতালের কর্ণধার।

Comments
Loading...