হেজ ফান্ড নিয়ে প্রকাশিত খবরের জের, ‘দ্য ক্যারাভান’ ম্যাগাজিনের বিরুদ্ধে মামলা করলেন অজিত ডোভালের ছেলে

জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত ডোভালের ছেলে বিবেক ডোভাল ‘দ্য ক্যারাভান’ ম্যাগাজিনের সম্পাদক এবং সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করলেন। গত ১৬ ই জানুয়ারি ‘দ্য ক্যারাভান’ ম্যাগাজিনে ‘ডি-কোম্পানিজ’ নামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়, যেখানে অভিযোগ করা হয়েছিল, অজিত ডোভালের ছেলে বিবেক ডোভাল কেম্যান দ্বীপপুঞ্জে হেজ ফান্ডের ব্যবসা খুলেছেন। এই খবরের বিরুদ্ধেই সোমবার অজিত ডোভালের ছোট ছেলে বিবেক ‘দ্য ক্যারাভান’এর সম্পাদক এবং সাংবাদিক কৌশল শ্রফের বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করেছেন। সেই সঙ্গে কংগ্রেস সাংসদ জয়রাম রমেশের বিরুদ্ধেও মামলা রুজু করেছেন তিনি।
‘দ্য ক্যারাভান’ ম্যাগাজিনে প্রকাশিত ওই প্রতিবেদনে লেখা হয়, ২০১৬ সালের ৮ নভেম্বর মোদী সরকারের নোটবন্দির সিদ্ধান্তের ঠিক ১৩ দিন বাদে কালো টাকা ঢাকতে কেম্যান দ্বীপপুঞ্জে একটি হেজ ফান্ড খোলেন অজিত ডোভালের পুত্র বিবেক ডোভাল। ওই ব্যবসায় ভাইকে সাহায্য করতেন অজিত ডোভালের অন্য ছেলে এবং বিজেপি নেতা শৌর্য ডোভাল। প্রতিবেদনে প্রকাশ, এই কেম্যান দ্বীপে কোনও কর্পোরেট ট্যাক্স দিতে হয় না, সেখানে প্রচুর টাকা বিনিয়োগ হয়েছে বিবেক ডোভালের ফান্ডে।
‘দ্য ক্যারাভান’ ম্যাগাজিনে প্রকাশিত প্রতিবেদনটির হেড লাইন ছিল ‘ডি কম্পানিজ’। মূলত এই নামে আন্ডার ওয়ার্ল্ড ডন দাউদ ইব্রাহিমকে বোঝানো হয়। এই প্রতিবেদনটি প্রকাশিত হওয়ার পর কংগ্রেস সাংসদ জয়রাম রমেশ বিষয়টি নিয়ে ট্যুইট করেন এবং তদন্তের দাবি করেন।
এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে বিবেক ডোভাল সাংবাদিকদের জানান, ২০১৬ সালে নয়, ২০১৩ সালে ব্যবসা শুরু করেন তিনি। তাঁর সংস্থার বিরুদ্ধে সৌদি আরবের এক সংস্থার নাম জড়ানোর অভিযোগও অস্বীকার করেছেন বিবেক ডোভাল। পাশাপাশি, তাঁর বক্তব্য, সংস্থার সঙ্গে দাদা শৌর্য ডোভাল কোনওভাবে যুক্ত নন। কেম্যান দ্বীপপুঞ্জে কর ফাঁকি দিয়ে ব্যবসা করছেন, এই অভিযোগও অস্বীকার করেন বিবেক।
তিনি পাল্টা অভিযোগ করেন, দেশের মানুষের কাছে তাঁর বাবার (অজিত ডোভাল) ভাবমূর্তি খারাপ করার অপচেষ্টা করা হচ্ছে, তার আইনি জবাব দেওয়া হবে।

Comments
Loading...