হিন্দু মেয়ের গায়ে কেউ হাত দিলে তা কেটে নেওয়া উচিত, বিতর্কিত মন্তব্য কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অনন্ত কুমার হেগড়ের

ফের বিতর্কিত মন্তব্য কর্ণাটকের বিজেপি নেতা এবং কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অনন্ত কুমার হেগড়ে। কিছুদিন আগেই সাবরীমালা মন্দিরে মহিলাদের প্রবেশের ঘটনাকে ‘হিন্দুদের দিনের আলোয় ধর্ষণ’ বলে ব্যখ্যা করেছিলেন। রবিবার অনন্ত কুমার হেগড়ে বললেন, হিন্দু মেয়েদের গায়ে যে হাত দেবে তার হাত কেটে নেওয়া উচিত। শুধু তাই নয়, তাঁর এই মন্তব্যের সমালোচনা করার জন্য কর্ণাটকের কংগ্রেস নেতাকে ব্যক্তিগত আক্রমণ করলেন তাঁর স্ত্রীকে জড়িয়ে।
রবিবার এক অনুষ্ঠানে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলেন, আমাদের অগ্রাধিকার নির্ধারিত হওয়া দরকার। কেউ হিন্দু মেয়েদের গায়ে হাত দিলে তার হাত থাকা উচিত নয়। অনন্ত কুমার হেগড়ে আরও বলেন, তাজমহল হিন্দুরা তৈরি করেছিলেন। তার নাম ছিল তেজো মহালায়া। পরে তার নাম পালটে তাজমহল করা হইয়। এভাবে চলতে থাকলে রাম, সীতার নামও পালটে দেবে মুসলিমরা।
অনন্ত হেগড়ে এই হাত কেটে নেওয়া মন্তব্যের সমালোচনা করেছিলেন কর্ণাটকের কংগ্রেস সভাপতি দীনেশ গুন্ডু রাও। তিনি বলেছিলেন, অন্তন্ত কুমার সাংসদ বা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হিসেবে কর্ণাটকের জন্য কিছুই করেননি। শুধু বিতর্কিত মন্তব্য করেন। এরপরই বেনজিরভাবে কংগ্রেস সভাপতিকে আক্রমণ করে অনন্ত কুমার ট্যুইট করেন। তাতে তিনি লেখেন, ‘দীনেশ গুন্ডু রাওয়ের কথার জবাব আমি অবশ্যই দেব। কিন্তু গুন্ডু রাও এক মুসলিম মহিলার পিছনে দৌড়ানো ছাড়া কিছুই করেননি।’ এই কথা অনন্ত কুমার কংগ্রেস নেতার স্ত্রী তাবু রাওকে উদ্দেশ্য করে লেখেন।

Comments
Loading...