রাফায়েলের পর নয়া বিতর্ক, পাওনা টাকা না পেয়ে অনিল আম্বানীর বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে সুইডিশ সংস্থা এরিকসন

প্রাপ্য ৫৫০ কোটি টাকা না পেয়ে অনিল আম্বানীর বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছে বিখ্যাত সুইডিশ টেলিকম সংস্থা এরিকসন। বুধবার এই সুইডিশ সংস্থার তরফে একটি পিটিশন জমা পড়েছে সুপ্রিম কোর্টে। এই আবেদনে সংস্থাটি সুপ্রিম কোর্টকে জানিয়েছে, অনিল আম্বানী ও তার সংস্থার দুই আধিকারিক যাতে এরিকসনের প্রাপ্য টাকা না মিটিয়ে দেশ ছেড়ে পালাতে না পারেন তার জন্য নির্দেশ জারি করুক বা হস্তক্ষেপ করুক কোর্ট। সুইডিশ সংস্থাটির দাবি, তাদের সাথে অনিল আম্বানীর সংস্থার যে ব্যবসায়িক চুক্তি হয়েছিল তাতে বকেয়া ১৬০০ কোটি টাকা এরিকসনকে দেওয়ার কথা অনিলের সংস্থার। পরে কোর্টের নজরদারিতে দুই সংস্থার মধ্যে সমঝোতা হয়, ১৬০০ কোটি নয় চলতি বছরের ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে এরিকসনকে বকেয়া ৫৫০ কোটি টাকা দিতে হবে অনিল আম্বানীর সংস্থাকে।
এরিকসনের দাবি, সেই সময়সীমা পেরিয়ে গেলেও কোর্টের নির্দেশ থাকা সত্ত্বেও আইনকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে প্রাপ্য ৫৫০ কোটি টাকা এরিকসনকে দেয়নি অনিল আম্বানীর সংস্থা। সেই দেনা শোধ না করে অনিল যেন দেশ ছেড়ে পালাতে না পারেন তার জন্য সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছে এরিকসন। অনিল আম্বানীর সংস্থা রিলায়েন্স কমিউনিকেশনের তরফে জানানো হয়েছে, টাকা মেটানোর জন্য ইতিমধ্যেই অতিরিক্ত ৬০ দিনের সময় চাওয়া হয়েছে ওই সুইডিশ সংস্থার কাছে। তাই কোর্টে তাদের এই আবেদন অন্যায্য।
অনিল আম্বানীর সংস্থার উপর ৪৫ হাজার কোটি টাকার দেনা রয়েছে এবং পূর্ব কোনও অভিজ্ঞতা থাকা না সত্ত্বেও তাঁর অন্য একটি সংস্থা রিলায়েন্স অয়াভিয়েশনকে কী করে ফ্রান্সের সাথে রাফাল চুক্তির আওতায় ভারতের তরফে অংশীদার সংস্থা হিসাবে রাখা হল তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে কংগ্রেস। এই ইস্যুতে কয়েকমাস ধরেই ময়দানে নেমেছে কংগ্রেস। রাহুল গান্ধী বলেছেন, বন্ধু শিল্পপতি অনিল আম্বানীকে সুবিধা পাইয়ে দিতেই ওই সংস্থার নাম চুক্তিতে ঢুকিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার ও পুরোটাই হয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নির্দেশে। যদিও বিষয়টি দুই দেশের তরফেই সরকারিভাবে অস্বীকার করা হয়েছে। বলা হয়েছে, অনিলের সংস্থাকে ফরাসি সংস্থা ড্যাসল্ট নিজেদের অংশীদার হিসাবে বেছে নিয়েছে। এই নিয়ে দুই দেশের সরকার কোনও হস্তক্ষেপ করেনি। যদিও সপ্তাহ তিনেক আগে প্রাক্তন ফরাসি প্রেসিডেন্ট ফ্রসোঁয়া ওলাঁদে দাবি করেন, ভারত সরকারই রিলায়েন্স ডিফেন্সের নাম সুপারিশ করেছিল।

Comments
Loading...