ভাটপাড়া পুরসভার চেয়ারম্যান অর্জুন সিংহকে আস্থা ভোটে হারাল তৃণমূল, এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা

আস্থা ভোটে পরাস্ত হয়ে ভাটপাড়া পুরসভার চেয়ারম্যানের পদ খোয়ালেন সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া অর্জুন সিংহ। ২২-১১ ভোটে হার হয় অর্জুনের। তাঁর অপসারণের পর শীঘ্রই নতুন পুর প্রধান নিয়োগ করা হবে জানিয়েছে বারাকপুর তৃণমূল নেতৃত্ব। আস্থা ভোটকে কেন্দ্র করে সোমবার সকাল থেকে ব্যাপক উত্তেজনা তৈরি হয় ভাটপাড়া সহ বারাকপুরের বিস্তীর্ণ এলাকায়।
তৃণমূল ছেড়ে পদ্ম শিবিরে নাম লেখানো বারাকপুর লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী অর্জুন সিংহের পুরসভার চেয়ারম্যান পদের মেয়াদ শেষ হয়ে গিয়েছিল বেশ কয়েকদিন আগেই। সোমবার ভাটপাড়া পুরসভার চেয়ারম্যান পদ থেকে অর্জুন সিংহকে সরাতে অনাস্থা প্রস্তাব আনে তৃণমূল।
ভাটপাড়া পুরসভার ৩৩ জন কাউন্সিলরের মধ্যে ২১ জনই অর্জুন সিংহের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাবে সম্মতি দিয়েছিলেন বলে খবর। অবশেষে ভোটাভুটিতে ২২ জন কাউন্সিলর অর্জুনের বিরুদ্ধে ভোট দেন। তৃণমূল ছেড়ে সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া অর্জুনের পক্ষে মাত্র ১১ টি ভোট পড়ে।
গত মাসে তৃণমূল ছেড়ে অর্জুন সিংহ বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর ভাটপাড়া পুরসভার চেয়ারম্যানের পদ থেকে তাঁকে সরানোর জন্য অনাস্থা আনার প্রস্তাব দেয় তৃণমূল। এমনকী পুরসভার বাজেট প্রস্তাব আটকে যায় এর কারণে। অন্যদিকে অনাস্থা ভোটের আগে অর্জুন সিংহের দাবি ছিল, অনৈতিকভাবে অনাস্থা প্রস্তাব আনা হয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে। তাঁর অভিযোগ, ব্যালটের পরিবর্তে হাত তুলে অনাস্থা ভোটাভুটির সিদ্ধান্ত আনা হয়েছে, যা আইনসম্মত নয়। অর্জুনের কথায়, আস্থাভোট কখনও হাত তুলে হতে পারে না, এ বিষয়ে সুপ্রিম কোর্ট ও হাইকোর্টের নির্দেশিকা রয়েছে।
এই ভোটে যাতে কোনও গণ্ডগোল, সংঘর্ষ না ঘটে তার জন্য ভাটপাড়া পুরসভা ভবনের বাইরে নামানো হয়েছে বিশাল কেন্দ্রীয় বাহিনী ও পুলিশ। অর্জুনের হারের পর পুরসভার বাইরে উচ্ছ্বাসে ফেটে পড়েন তৃণমূল কর্মী, সমর্থকরা। আর আস্থা ভোটে হারের পর ভাটপাড়া পুরসভা থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সময় অর্জুন সিংহ বলেন, লোকসভা ভোটে এর জবাব দেবে মানুষ।

Comments
Loading...