‘সারা দেশে বিজেপি হারছে, তৃণমূলকে ভোট দিন’, কোচবিহারের নির্বাচনী সভা থেকে কেন্দ্রে সরকার গড়ার ডাক মমতার

একবার ভুল করে প্রধানমন্ত্রী হয়ে গিয়েছিলেন, এবার আর হবেন না, কোচবিহারের সভা থেকে নরেন্দ্র মোদীকে কটাক্ষ তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। সোমবার উত্তরবঙ্গের নাগরাকাটা ও কোচবিহারের নির্বাচনী সভা থেকে মোদীকে তীব্র আক্রমণ করে ফের দিল্লিতে সরকার গঠনের ঘোষণা করলেন তৃণমূল নেত্রী।
নাগরাকাটার সভা থেকে মমতার প্রশ্ন, কেমন করে সরকার গড়বে বিজেপি? লোকসভা নির্বাচনে বেশিরভাগ রাজ্যেই এবার হারছে বিজেপি। তাই ভুল রাস্তায় যাবেন না, ভোট দিন তৃণমূলে। তৃণমূল নেত্রীর কথায়, উত্তর-পূর্ব বা মহারাষ্ট্র, তামিলনাড়ু, কেরল, উত্তর প্রদেশ, মধ্য প্রদেশ, গুজরাত, ওড়িশা, ছত্তিশগড় থেকে বাংলা, অধিকাংশ রাজ্যেই এবার হারবে বিজেপি। দু’দিন আগে উত্তরবঙ্গেরই নির্বাচনী সভা মমতা ঘোষণা করেছিলেন, দেশে এবার সরকার গড়বে তৃণমূল, তাই একটি ভোটও বিজেপিকে নয়। এদিনও সেই সুর শোনা গেল মমতার বক্তব্যে।
সোমবার দিল্লিতে যখন ইশতেহার প্রকাশ করছেন বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব, তখন নাগরাকাটায় বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে বিজেপিকে বিঁধলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
রবিবারই কোচবিহারে নির্বাচনী সভা করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী। এদিন কোচবিহারের সেই মাঠেই সভা থেকে মোদীকে আক্রমণ শানিয়ে মমতা বলেন, পাঁচ বছর সরকার চালিয়ে এখন তাঁর কাছে কৈফিয়ত চাইছেন মোদী। প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে তৃণমূল নেত্রীর পাল্টা প্রশ্ন, পাঁচ বছরে আপনি কী করলেন? নরেন্দ্র মোদীকে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী বলে কটাক্ষ করে মমতা বলেন, পাঁচ বছর ধরে দেখা মেলেনি, কেবল বিদেশ ঘুরে বেড়িয়েছেন। অমিত শাহ-নরেন্দ্র মোদীকে দুর্যোধন-দুঃশাসন জুটি বলে তীব্র আক্রমণ করে মমতার কটাক্ষ, মোদী ‘ঝুটা হ্যায়, লুটেরা হ্যায়’। বাংলার মাটিতে তাকাতেই দেব না। বিজেপির ইঞ্চিতে ইঞ্চিতে জবাব নেব, তোপ মমতার।
বিজেপি সরকারকে ঔদ্ধত্যবাদী, ফ্যাসিস্ত বলে আক্রমণ করে মমতা বলেন, অনেক বিরোধী দল মোদীকে ভয় পায়, কিন্তু তৃণমূল পায় না। মিথ্যে বললে হামাগুড়ি দিয়ে ক্ষমা চাইব, আপনি মিথ্যে বললে আপনাকেও তাই করতে হবে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে ওপেন চ্যালেঞ্জ তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের।

Comments
Loading...