অর্ণব-কংগ্রেস সংঘাত! রিপাবলিক টিভির সম্পাদকের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা, অর্ণবের ওপর হামলার অভিযোগ

ফের খবরের শিরোনামে রিপাবলিক টিভির সাংবাদিক এবং অন্যতম কর্ণধার অর্ণব গোস্বামী। রিপাবলিক টিভির সম্পাদকের সঙ্গে বেনজির সংঘাত কংগ্রেসের।
রাহুল গান্ধীর বক্তব্যকে বিকৃত করা, সোনিয়া গান্ধী সম্পর্কে অবমাননাকর মন্তব্য এবং পালঘরে গণপিটুনিতে সন্ন্যাসীর মৃত্যু নিয়ে জাতি বিদ্বেষ ছড়ানোর অভিযোগে অর্ণব গোস্বামীর বিরুদ্ধে একাধিক এফআইআর দায়ের হল দেশের বিভিন্ন জায়গায়। উল্টোদিকে অর্ণব গোস্বামীর ওপর হামলার অভিযোগ উঠল একই দিনে। যে ঘটনায় গ্রেফতার করা হয়েছে দু’জনকে। ধৃতরা কংগ্রেসের গুণ্ডা বলে অভিযোগ করেছেন খোদ অর্ণব গোস্বামী।
বুধবার ছত্তিসগঢ়ে দুটি আলাদা অভিযোগে দায়ের হয়েছে রিপাবলিক টিভি চ্যানেলের সাংবাদিক ও সম্পাদকের বিরুদ্ধে। মহারাষ্ট্রের পালঘরে গণপিটুনির ঘটনা নিয়ে বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মধ্যে বিভেদ ছড়ানোর অভিযোগে একটি এফআইআর দায়ের হয়েছে। অন্যটি দায়ের হয় করোনাভাইরাস নিয়ে রিপাবলিক টিভিতে ভুল ও ভুয়ো খবর সম্প্রচারের অভিযোগে। ছত্তিসগঢ়ের স্বাস্থ্যমন্ত্রী টি এস সিংহ ও সেই রাজ্যের কংগ্রেস সভাপতি মোহন মারকম প্রথম অভিযোগ দায়ের করেন বলে খবর।
অভিযোগ করা হয় খবরের চ্যানেলের মাধ্যমে হিন্দু, মুসলিম ও খ্রিষ্টান ধর্মের মধ্যে বিদ্বেষ ছড়াচ্ছেন অর্ণব। এমনকী রিপাবলিক টিভির বিতর্কে ‘কংগ্রেস নেত্রী সনিয়া গান্ধীর সাম্প্রদায়িক মনোভাব আছে’ এমন ভিত্তিহীন কথা বলেন রিপাবলিক টিভির অ্যাঙ্কর, এমনই অভিযোগ করা হয়।
অর্ণব গোস্বামীর বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির ১৫৩ এ, ২৯৫ এ, ৫০৫ (২) ধারায় মামলা রুজু হয়। তাছাড়া রাহুল গান্ধীর মন্তব্য বিকৃত করার অভিযোগে মধ্যপ্রদেশেও একটি মামলা দায়ের করেছে কংগ্রেস।
অন্যদিকে বুধবার রাতে অর্ণব গোস্বামীর ওপর হামলার অভিযোগ এই গোটা ঘটনায় নতুন মাত্রা যোগ করেছে। একটি ভিডিও মেসেজে অর্ণব জানান, স্ত্রীর সঙ্গে বাড়ি ফেরার সময় দুই বাইক আরোহী তাঁদের গাড়িতে হামলা চালায়। প্রথমে গাড়ির জানলার কাচ ভাঙার চেষ্টা হয়, তারপরে বোতল ভর্তি কিছু তরল ছুঁড়ে মারা হয়। সে সময় তাঁর নিরাপত্তারক্ষীরা ওই দু’জন কে পাকড়াও করেন। তাঁরা দু’জনই যুব কংগ্রেসের সদস্য বলে অভিযোগ রিপাবলিক টিভির সাংবাদিকের। বৃহস্পতিবার সকালে অর্ণব গোস্বামী ও তাঁর স্ত্রীয়ের উপর হামলার অভিযোগে দু’জনকে গ্রেফতার করেছে মুম্বই পুলিশ। ধৃতদের বিরুদ্ধে এন এম যোশী মার্গ থানায় ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৪১, ৫০৪ ধারায় এফআইআর দায়ের হয়েছে। অর্ণব এই পুরো ঘটনার দায় কংগ্রেসের উপর চাপিয়েছেন।

Comments
Loading...