এর আগেও দু’বার উধাও হয়েছিলেন নদিয়ার নোডাল অফিসার অর্ণব রায়, এবার ৭ দিনই কাটান হাওড়া স্টেশনে

নদিয়ার নোডাল অফিসার অর্ণব রায় এর আগেও দু’বার উধাও হয়ে গিয়েছিলেন। কিন্তু তিনি কেন বারবার উধাও হয়ে যান, সেই প্রশ্নের জবাব খুঁজতেই গত কয়েক দিনে দিশেহারা হয়ে পড়েছিলেন সিআইডি অফিসাররা। অবশেষে বৃহস্পতিবার সকালে হাওড়া স্টেশন থেকে অর্ণব রায়কে উদ্ধার করে হাঁফ ছেড়েছেন গোয়েন্দারা। তিনি মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন বলে সূত্রের খবর।
কৃষ্ণনগরের নোডাল অফিসার এবং ইভিএমের ওসি অর্ণব রায় গত ১৮ ই এপ্রিল হঠাৎ করেই নিখোঁজ হয়ে যান। তাঁর কাছেই ছিল ইভিএম রাখার স্ট্রং রুমের চাবি। তাঁর এই নিখোঁজ হয়ে যাওয়ার পিছনে নির্বাচনী কোনও বিষয় বা রাজনৈতিক কারণ রয়েছে কিনা তা নিয়ে জল্পনা শুরু হয়। এই ঘটনার পিছনে গুরুতর কারণ রয়েছে বলে অভিযোগ করেন বিরোধীরা। নিখোঁজ অর্ণবের স্ত্রীও এই নিখোঁজ হওয়ার পিছনে রহস্য থাকতে পারে বলে সন্দেহ প্রকাশ করেছিলেন।
কিন্ত ঘটনার তদন্তে নেমে সিআইডির অফিসাররা প্রথমেই বুঝতে পারেন, অর্ণব রায়ের নিখোঁজ হওয়ার পিছনে অন্য কারও হাত নেই। তিনি সম্পূর্ণ নিজের ইচ্ছেয় কোথাও গিয়েছেন। দুটি বিষয় দেখে এ ব্যাপারে নিশ্চিত হন গোয়েন্দারা। প্রথমত, ১৮ ই এপ্রিল নিখোঁজ হওয়ার আগে অর্ণব ইভিএমের স্ট্রং রুমের চাবি তাঁর অফিসের অন্য এক অফিসারকে দেন, এবং তাঁকে বলেন, তিনি একটু ঘুরে আসছেন। এর পর অর্ণব আর ফেরেননি। অফিসাররা বুঝতে পারেন, তাঁর নিখোঁজের পিছনে অন্য কারও হাত থাকলে তিনি অন্য অফিসারকে চাবি দিয়ে বেরোতেন না। কিন্তু তাতেও নিশ্চিত হতে পারছিলেন না গোয়েন্দারা। পরে তাঁরা অর্ণব রায়ের বাড়ির লোক এবং অফিসের কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলে জানতে পারেন, এর আগে দু’বার নিখোঁজ হয়ে গিয়েছিলেন তিনি।
৭-৮ বছর আগে একবার তিনি বাড়ি থেকে কাউকে কিছু না বলে চলে যান। সেবার তিনি বেশ কয়েক দিন ছিলেন বেলুড় মঠে। তারপর বাড়ি ফিরেছিলেন। তিন বছর আগে তিনি যখন স্বরূপনগরে পোস্টিং ছিলেন তখন একবার দু’দিনের জন্য উধাও হয়ে গিয়েছিলেন। তখন তিনি ছিলেন দক্ষিণেশ্বরে। এই ঘটনা জানার পরই গত কয়েক দিনে গোয়েন্দারা বেলুড় মঠ, দক্ষিণেশ্বর চত্বর চষে ফেলেন। আধ্যাত্মিক কোনও কারণে তিনি কোথায় যেতে পারেন ভেবে অন্য কিছু জায়গাতেও তল্লাশি চালানো হয়।
অবশেষে বৃহস্পতিবার সকালে অর্ণব মোবাইল ফোল চালু করার পরই হাওড়া স্টেশনে টাওয়ার লোকেশন দেখে গোয়েন্দারা তাঁকে সেখান থেকে উদ্ধার করেন। জানতে পারেন, গত সাত দিন ধরে তিনি হাওড়া স্টেশন চত্বরেই ছিলেন। কখনও ওয়েটিং রুমে, কখনও প্ল্যাটফর্মে সময় কাটিয়েছেন তিনি।

Comments
Loading...