শেষযাত্রায় অটল বিহারী বাজপায়ী

আগে ঠিক ছিল শুক্রবার সকাল ৯ টায় ভারতের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারী বাজপায়ীর দেহ দিল্লির ৬এ কৃষ্ণ মেনন মার্গস্থিত তাঁর বাসভবন থেকে নিয়ে যাওয়া হবে দীন দয়াল উপাধ্যায় মার্গে অবস্থিত বিজেপির সদর দফতরে। কিন্তু বৃহস্পতিবার সন্ধ্যে থেকে দেশের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীকে শ্রদ্ধা জানানোর ঢল নামে দেশের তাবড় রাজনৈতিক নেতৃত্ব, ভিআইপি, ভিভিআইপি’দের। যা বহাল ছিল শুক্রবার সকালেও। ফলে নির্ধারিত সময়ের বেশ কিছু পরে সকাল ১০.৩০ টা নাগাদ ৬এ কৃষ্ণ মেনন মার্গের বাড়ি থেকে ভারতীয় সেনার তিন বাহিনীর তত্ত্বাবধানে রওনা দেয় অটল বিহারী বাজপায়ীর শবদেহবাহী শকট। এদিন সকালে তাঁকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে তাঁর বাড়িতে যান কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী, অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডু, দেশের সেনা-নৌসেনা-বায়ুসেনার তিন প্রধান, জাভেদ আখতার, শাবানা আজমি প্রমুখ।
এরপর সকাল ১১টা ১৫ নাগাদ বিজেপির সদর দফতরে পৌঁছয় অটল বিহারী বাজপেয়ীর মরদেহ। সেখানে তাঁকে আরও একবার শ্রদ্ধা জানান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিংহ, উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্য নাথ, লালকৃষ্ণ আদবানি প্রমুখ। পরে সেখানে তাঁকে শ্রদ্ধা জানাতে যান আরএসএস প্রধান মোহন ভাগবত, শিবসেনা প্রধান উদ্ভব ঠাকরে, সিপিএম সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরিসহ বিজেপির একাধিক রাজ্যের মুখমন্ত্রী, কেন্দ্রীয় নেতা-মন্ত্রী, প্রদেশ নেতৃত্বসহ বহু সাধারণ ও দলীয় কর্মী। বিকাল ৪ টে নাগাদ এখান থেকে দিল্লির স্মৃতি স্থলের উদ্দ্যেশে নিয়ে যাওয়া হবে অটল বিহারী বাজপেয়ীর মরদেহ। সেখানেই পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় তাঁর শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে। তাঁর শেষকৃত্যে যোগ দিতে ইতিমধ্যেই দিল্লি পৌঁছেছেন ভুটানের রাজা, বাংলাদেশ, নেপালের বিদেশমন্ত্রীরা। আরও বেশ কিছু দেশের প্রতিনিধি ও প্রথম সারির নেতাদের আসার কথা রয়েছে।

Comments
Loading...