‘যেই ক্যামেরা দিচ্ছো খালি পোজ’: একসঙ্গে ১০ হাজারের বেশি ছবি ফেসবুকে দিয়ে তোলপাড় ফেলে দিলেন মন্ত্রী! জানেন কে?

বাংলাদেশ মন্ত্রীর ফেসবুকে ছবি পোস্টের হিড়িক দেখে হেসে কুটোকুটি নেটিজেনরা

মদন মিত্রের ফেসবুক লাইভ কিংবা সুপ্রিম কোর্টের প্রাক্তন বিচারপতি মার্কেন্ডি কাটজু’র ফেসবুক পোস্ট, এঁদের ফ্যান বেস আলাদাই। কিন্তু আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তথা বাংলাদেশের সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ফেসবুক পোস্টের সংখ্যার কাছে এঁরা নিমিত্ত মাত্র। ফেসবুক পোস্টে লাইক, কমেন্ট কিংবা শেয়ার, কোনও কিছুতেই কাদেরের ধারেকাছে নেই তাঁরা।
সম্প্রতি বাংলাদেশের মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ব্লু টিক দেওয়া (ভেরিফায়েড) ফেসবুক পেজ থেকে একটি পোস্ট ভাইরাল হয়েছে। তাতে একসঙ্গে ১১ হাজার ৮৪৭টি ছবি রয়েছে! এত সংখ্যক ছবি পোস্ট হয়েছে যে একটার পর একটা ছবি দেখে পুরো অ্যালবাম শেষই করতে পারছেন না কেউ। একই পোশাক একই পোজ, একই জায়গাতেই একের পর এক ছবি পোস্ট করেছেন বাংলাদেশের মন্ত্রী। কোনও ছবিতে আওয়ামী লিগের সাধারণ সম্পাদককে দেখা যায় বাগানের মধ্যে হাসি মুখে দাঁড়িয়ে থাকতে, কোথাও আবার ফুল হাতে অন্যমনস্ক তিনি। এই সব ছবি ও তার সংখ্যা দেখে হাসির রোল উঠেছে নেটিজেনদের মধ্যে। চলছে মজার মজার কমেন্ট লেখা। কেউ লিখেছেন, ‘কিন্তু আবার ক্যানো কাকু?’ কেউ আবার লিখেছেন, ‘চাকরি হারিয়ে কী করব ভেবে পাচ্ছিলাম না, তাই কাদের সাহেবের ফেসবুক পেজে ঢুঁ দিতে এসেছি।’ তবে এই পেজে ঢুকলে আলাদা আলাদা অ্যালবাম দেখা যাচ্ছে। সেখানেও একসঙ্গে আছে অন্তত ১০টি করে ছবি।

 
এই প্রেক্ষিতে অনেক নেটিজেন আবার প্রশ্ন তুলেছেন এটা সত্যিই কি কোনও মন্ত্রীর ফেসবুক প্রোফাইল? নাকি ট্রোল পেজ?
ফেসবুকে বরাবরই সক্রিয় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তথা বাংলাদেশের সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। প্রায় প্রতিদিনই নিজের বিভিন্ন কাজের ছবি ফেসবুকে দিয়ে থাকেন। ছবি যেমন মজার ছবির উপর ক্যাপশনও আকর্ষণীয়।
তবে বাংলাদেশের এই মন্ত্রী তথা আওয়ামী লিগের সাধারণ সম্পাদকের ফেসবুকে এই ছবি পোস্ট ঘিরে বিতর্কও কম হয়নি। গত ১৫ অগাস্ট বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানের মৃত্যদিনে কালো পাজামা-পাঞ্জাবি, কালো ব্যাজ আর চোখে কালো চশমা পরে একসঙ্গে বহু ছবি পোস্ট করে তার ক্যাপশনে লেখেন ‘ট্রিবিউট টু বঙ্গবন্ধু ১৫ আগস্ট ২০২০।’ পরে ব্যাপক সমালোচনায় সেই পোস্ট ডিলিট করে দেন মন্ত্রী।
জানা যাচ্ছে, বাংলাদেশের মন্ত্রী পোশাক, জুতো ও ঘড়ির ব্যাপারে ব্যাপারে ভীষণ খুঁতখুঁতে ও শৌখিন। ছবি তুলতে বিশেষ পছন্দ করেন তিনি। তাঁর নানা ভঙ্গিমার ছবি তোলা ও ভিডিও করার জন্য পেশাদাররা দায়িত্বে থাকেন। প্রোফাইলে ছবি আপলোডও হয় মন্ত্রীর অনুমতি নিয়েই।

Comments
Loading...