ক্যারি ব্যাগের জন্য অতিরিক্ত ৩ টাকা, ৯ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হল বাটাকে

জুতো বিক্রির পর, সেই জুতোর সঙ্গে ক্যারি ব্যাগের জন্য অতিরিক্ত দাম নিয়ে ৯ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ দিতে হল ‘বাটা ইন্ডিয়া লিমিটেড’কে। ঘটনাটি ঘটেছে চন্ডীগড়ের সেক্টর ২২ডি এলাকায়।

গত ৫ ই ফেব্রুয়ারি ‘বাটা’র শোরুম থেকে জনৈক দীনেশ প্রসাদ রাতুরি এক জোড়া জুতো কেনেন। জুতোটির দাম ছিল ৩৯৯ টাকা। যে ক্যারি ব্যাগে করে সেই জুতো দেওয়া হয় তার দাম ৩ টাকা ধরে, মোট ৪০২ টাকার রসিদ দেওয়া হয় দীনেশ প্রসাদ রাতুরিকে। কিন্তু ক্যারি ব্যাগের জন্য অতিরিক্ত ৩ টাকা দিতে রাজি ছিলেন না ওই ক্রেতা। তাঁর যুক্তি, দোকান থেকে পণ্য কিনলে, তা নিয়ে যাওয়ার জন্য ক্যারি ব্যাগ ওই দোকানেরই দেওয়া উচিত। তাছাড়া, যে ক্যারি ব্যাগটির জন্য তাঁর কাছ থেকে অতিরিক্ত টাকা চাওয়া হচ্ছে, সেই ব্যাগেও তো সংশ্লিষ্ট কোম্পানিরই বিজ্ঞাপন প্রচার করা হচ্ছে। তাহলে কেন তিনি অতিরিক্ত ৩ টাকা খরচ করবেন? ক্যারি ব্যাগের জন্য নেওয়া অতিরিক্ত ৩ টাকা ফেরত চান ‘বাটা’র কাছে। কিন্তু ‘বাটা’র সংশ্লিষ্ট শোরুম সেই টাকা ফেরত দিতে অসম্মত হলে, বিষয়টি নিয়ে চন্ডীগড় কনজিউমার কমিশনের দ্বারস্থ হন দীনেশ প্রসাদ রাতুরি।
দীনেশ বাবুর অভিযোগের ভিত্তিতে কমিশনের পর্যবেক্ষণ, ওই ক্যারি ব্যাগের দাম দেওয়ার জন্য বাধ্য নন ক্রেতা। কনজিউমার ফোরামের নিয়ম অনুযায়ী, পণ্যের সঙ্গে বিনামূল্যে ক্যারি ব্যাগ দেওয়া যে কোনও স্টোরেরই কর্তব্য। তাছাড়া, সংশ্লিষ্ট সংস্থা বা দোকান যদি পরিবেশ নিয়ে ভাবিত হয়, তাহলে পরিবেশ বান্ধব ব্যাগও বিনামূল্যেই দিতে হবে ক্রেতাকে। এরপরেই চণ্ডীগড় কনজিউমার কমিশন ক্যারি ব্যাগের জন্য নেওয়া অতিরিক্ত ৩ টাকা বাটা ইন্ডিয়া লিমিটেডকে ফিরিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দেয়। ১ হাজার টাকা মামলার খরচ ও ক্রেতাকে হয়রান করার জন্য আরও ৩ হাজার টাকা জরিমানা ধার্য করে। পাশাপাশি কমিশনের নির্দেশ, ‘বাটা’কে আরও ৫ হাজার টাকা জরিমানা দিতে হবে স্টেট কনজিউমার ডিসপিউটস রিড্রেসাল কমিশনকে।

Comments
Loading...