বিহারে বিজেপি বিরোধী মহাজোটে যোগ দিলেন উপেন্দ্র খুশওয়া, যোগ দিতে পারেন রামবিলাস পাসওয়ানও

বিহারে ক্রমশই পরিষ্কার হচ্ছে লোকসভা নির্বাচনের আগে রাজনৈতিক সমীকরণ। একদিকে বিজেপি-নীতীশ, অন্যদিকে লালু-কংগ্রেস। বাকি ছোট দলগুলিও আস্তে আস্তে পরিষ্কার করছে তাদের অবস্থান। বৃহস্পতিবারই বিহারে এনডিএ জোট ছেড়ে ‘মহাগাটবন্ধনে’ যোগ দিলেন উপেন্দ্র খুশওয়া। লোকসভা আসন বন্টন নিয়ে অশান্তির জেরে সম্প্রতি এনডিএ জোট ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন উপেন্দ্র খুশওয়া। গত সপ্তাহে তিনি কেন্দ্রীয় মন্ত্রিত্ব থেকেও ইস্তফা দেন। এরপর, লাগাতার প্রকাশ্যে বিজেপি ও নীতীশ জোটের সমালোচনায় মুখর হন আরএলএসপি প্রধান। উপেন্দ্র খুশওয়া অভিযোগ করেন, বিজেপি চায় না কোনও আঞ্চলিক দল উঠে আসুক রাজ্য রাজনীতিতে। আঞ্চলিক দলগুলিকে ধ্বংস করতে চায় বিজেপি বলেও তোপ দাগেন তিনি বুধবার।
বৃহস্পতিবার, অবশেষে বিজেপি বিরোধী জোটে যোগ দিলেন উপেন্দ্র খুশওয়া।
মহাগটবন্ধনে যোগ দিয়ে আরএলএসপি প্রধান কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী ও লালুপ্রসাদ যাদবের ভুয়সী প্রশংসা করেন। বলেন, এই দু’জনের কারণেই তাঁর মহাগটবন্ধনে যোগ দেওয়া।
বিহারে আগামী লোকসভা নির্বাচনে আসন বন্টন নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত না নিলেও, বিজেপি ও নীতীশ ‘ফিফটি-ফিফটি’ আসন ভাগের খবর চাউর হতে বেঁকে বসেন উপেন্দ্র খুশওয়া, রামবিলাস পাসোয়ানরা। একদিকে, যখন ইতিমধ্যেই বিজেপি বিরোধী জোটে যোগ দিয়ে দিলেন খুশওয়া তখন চাপানউতোর চলছে পাসোয়ানদের বিজেপি জোট ছাড়া নিয়ে। সূত্রের খবর, তেজস্বী-রাহুল জোটে ‘ভালো অফার’ পাওয়ার পরেই খুশওয়া বিজেপি সঙ্গ ত্যাগ করেছেন। লালু পুত্র তেজস্বী যাদব আবার খুশওয়ার জোটে আসায় আবেগ বিহ্বলিত ট্যুইট করে জানালেন ‘এটা শুধু রাজনৈতিক জোট নয়, আত্মার জোট, রাজ্যের কৃষক ও যুবকের স্বার্থের জোট।’ তিনি বলেন, মহাগটবন্ধন পরিবার আস্তে আস্তে বাড়ছে। চিরাগ পাসওয়ানকেও তিনি এনডিএ জোট ছেড়ে তাঁদের জোটে আসতে স্বাগত জানিয়েছেন।

Comments
Loading...