বিশ্বের ধনীতম ব্যক্তির তকমা হারালেন অ্যামাজনের প্রতিষ্ঠাতা জেফ বেজোস, ফের এক নম্বরে বিল গেটস

বিশ্বের ধনীতম ব্যক্তির তকমা হারালেন অ্যামাজনের প্রতিষ্ঠাতা তথা সিইও জেফ বেজোস। শেয়ার বাজারে অ্যামাজনের দরের বড়সড় পতনের জেরে বিশ্বের ধনী ব্যক্তিদের তালিকার ১ নম্বর থেকে ছিটকে গেলেন জেফ বেজোস। তাঁকে পেছনে ফেলে ২০১৮ সালের পর ফের বিশ্বের ধনীতম ব্যক্তির জায়গা দখল করলেন মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস।
গত বৃহস্পতিবার অ্যামাজনের শেয়ারে ৭ শতাংশ পতন ঘটায় জেফ বেজোসের সম্পত্তি এসে ঠেকেছে ১০ হাজার ৩৯০ কোটি মার্কিন ডলারে। অন্যদিকে, বিল গেটসের বর্তমান সম্পত্তির পরিমাণ ১০ হাজার ৫৭০ কোটি ডলার। ফোবর্সের ধনীতম ব্যক্তিদের তালিকায় ২৪ বছর বিশ্বের ধনীতম ব্যক্তির জায়গা ধরে রেখেছিলেন বিল গেটস। কিন্তু ২০১৮ সালে বিল গেটসকে টপকে বিশ্বের ধনীতম ব্যক্তির জায়গা নিয়েছিলেন ১৬ হাজার কোটি মার্কিন ডলারের মালিক জেফ বেজোস। এরপর থেকে তিনিই ছিলেন বিশ্বের ধনীতম ব্যক্তি। কিন্তু বৃহস্পতিবার অ্যামাজনের শেয়ার পতনের পর দেখা যায় প্রায় ৭০০ কোটি ডলার স্টক খুইয়েছেন জেফ বেজোস। এর জেরে তাঁকে পিছনে ফেলে আবারও বিশ্বের ১ নম্বর ধনী ব্যক্তি হলেন বিল গেটস।
১৯৯৪ সালে অনলাইন রিটেল সংস্থা অ্যামাজন প্রতিষ্ঠা করেন জেফ বেজোস। এর ৪ বছরের মধ্যেই ১৯৯৮ সালে ফোর্বসের বিচারে বিশ্বের ৪০০ জন ধনীর তালিকাতে প্রথমবার ঢুকে পড়েন। ২০১৭ সালে বিশ্বের তৃতীয় ধনীতম ব্যক্তি হিসাবে নিজের জায়গা পাকা করে নেন অ্যামাজনের প্রতিষ্ঠাতা। এর এক বছরের মধ্যেই ২০১৮ সালে বিল গেটসকে সরিয়ে তিনিই বিশ্বের ধনীতম ব্যক্তির জায়গা পাকা করে নিয়েছিলেন।
অন্যদিকে, ১৯৮৭ সালে ফোর্বস পত্রিকার বিশ্বের ধনী ব্যক্তিদের তালিকায় প্রথমবার জায়গা পান বিল গেটস। সেই সময় তাঁর সম্পদের পরিমাণ ছিল ১.৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। এরপর ১৯৯৫ থেকে ২০০৭ পর্যন্ত ধনীদের তালিকায় বিশ্বের মধ্যে এক নম্বরে ছিলেন বিল গেটস। মাঝখানে ২০০৮ সালে একবার ১ নম্বর থেকে ছিটকে যান। তবে ২০১৯ থেকে ২০১৮ পর্যন্ত ফের তিনিই ছিলেন বিশ্বের ধনীতম ব্যক্তি। মাত্র ১ বছরের ব্যবধানে জেফ বেজোসকে পেছনে রেখে ধনীতম ব্যক্তি হিসাবে আবারও ১ নম্বর স্থানে উঠে এলেন বিল গেটস।

Comments
Loading...