বিরসা মূর্তি বিতর্কে নয়া মোড়, অমিত শাহকে ক্ষমা চাইতে হবে, ৫০ হাজার চিঠি পাঠাচ্ছেন জঙ্গলমহলের আদিবাসীরা

বিরসা মুন্ডা বিতর্ক মেটার নাম নেই। এবার পাল্টা চাপের পথে তৃণমূল। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহকে ক্ষমা চাইতে হবে এই দাবিতে ৫০ হাজার পোস্টকার্ড পাঠাচ্ছেন জঙ্গলমহলের বাসিন্দারা।

গত ৫ নভেম্বর বাঁকুড়া এসে বিরসা মুন্ডার মূর্তিতে মাল্যদান করেন অমিত শাহ। কিন্তু পরে জানা যায় ওই মূর্তি বিরসার নয় বরং  কোনও এক আদিবাসী শিকারির। তারপর থেকেই বিরসা বিতর্ক মাথাচাড়া দিয়েছে। তৃণমূলের অভিযোগ বিজেপি আদিবাসী সংস্কৃতির প্রতি শ্রদ্ধাশীল নয়। তাই যাকে তাঁকে বিরসা সাজিয়ে নাটক করেন অমিত শাহরা। অন্যদিকে বিজেপির রাজ্য সভাপতি সাফ জানিয়ে দেন, অমিত শাহ যে মূর্তিতে মালা দিয়েছেন তাকেই বিরসা মুন্ডা বলে মানতে হবে। 

রাজনৈতিক মহলের মতে বিজেপির রাজ্য সভাপতির এই মন্তব্য অস্ত্র তুলে দিয়েছে তৃণমূলের হাতে। বাঁকুড়ার এক তৃণমূল নেতার অভিযোগ, অন্য কারও মূর্তিকে বিরসা বলে মালা দিয়ে আদিবাসীদের বিশ্বাস নিয়ে ছেলেখেলা করেছে বিজেপি। কিন্তু আদিবাসীরা সবচেয়ে দুঃখ পেয়েছেন বিজেপি নেতারা এত কিছুর পরও ভুল স্বীকার না করায়। ক্ষমা চাওয়ার দাবিতে তাই ৫০ হাজার চিঠি যাচ্ছে অমিত শাহের দিল্লির ঠিকানায়। 

জেলায় তৃণমূলের ওই নেতার দাবি, বিরসা কাণ্ডের পর আদিবাসীদের মধ্যে বিজেপি সম্পর্কে যে বার্তা পৌঁছেছে, অবশ্যই  তার প্রভাব পড়তে চলেছে ভোটে বাক্সে। তৃণমূল সেই সুযোগ কাজে লাগাবে। 

কী হবে চিঠির বয়ান? 

বাঁকুড়া তৃণমূল সূত্রে খবর, বিজেপির রাজ্য নেতৃত্ব যেভাবে কোনও এক অজ্ঞাত শিকারির মূর্তিকে বিরসা মনে করে মালা দিয়েছেন এবং ভুল ধরা পরার পরও যেভাবে জবরদস্তি তা অস্বীকার করছেন, সেটাই চিঠিতে তুলে ধরবেন আদিবাসীরা। চিঠিতে অমিত শাহের কাছে ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানানো হবে। 

গত লোকসভা ভোটে আদিবাসী অধ্যুষিত জঙ্গলমহলে দুর্দান্ত ফল করেছিল বিজেপি। আসন্ন বিধানসভা ভোটের আগে সেই জায়গাতেই বিজেপিকে অস্বস্তিতে ফেলতে কোমর বেঁধে নামছে রাজ্যের শাসক দল। তারই প্রথম ধাপ, ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানিয়ে খোদ অমিত শাহকে ৫০ হাজার আদিবাসী মানুষের চিঠি।  

Comments
Loading...