সোমবার দিল্লিতে বিরোধী দলগুলির বৈঠকে যোগ না দিলেও, মধ্য প্রদেশে বিজেপিকে ঠেকাতে কংগ্রেসকে সমর্থন করছেন মায়াবতী

মধ্য প্রদেশ নির্বাচনে জিতলেও সরকার গড়ায় কংগ্রেসের বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছিল ২ টি আসন। ২৩০টি আসনের মধ্যে কংগ্রেস ১১৪ টি আসন জিতলেও ম্যাজিক নম্বর ছুঁতে পারেনি। অন্যদিকে ১০৯ টি আসন পাওয়া বিজেপিও খুব একটা দূরে নেই। এই অবস্থায় বুধবার সকালে মায়াবতী জানিয়ে দিলেন, বিজেপিকে ঠেকাতে কংগ্রেসকেই সমর্থন করবে বিএসপি। বিএসপি এদিন কংগ্রেসকে সমর্থনের কথা ঘোষণা করতেই সরকার গড়ার আর আশা নেই বুঝে পদত্যাগ করেন বিজেপির মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিংহ চৌহান।
বুধবার সকালে মায়াবতী জানান, আমাদের নির্বাচনে লড়ার লক্ষ্যই ছিল যাতে আর একবার বিজেপি এরাজ্যে ক্ষমতায় ফিরতে না পারে। তাই কংগ্রেসকেই সমর্থন দেবে বহুজন সমাজবাদী পার্টি (বিএসপি)। মধ্যপ্রদেশে ২টি আসন পাওয়া বিএসপির সমর্থন পেলে কংগ্রেস সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করবে।
তবে সমর্থনের কথা ঘোষণা করলেও কংগ্রেসকে বিঁধতে ছাড়েননি মায়াবতী। তিনি বলেন, বেশিরভাগ রাজ্যে নিজেদের ক্ষমতা পুণরায় প্রতিষ্ঠা করলেও, কংগ্রেস মানুষের জন্য সেভাবে কাজ করেনি। তাই আঞ্চলিক দলগুলিতে সাধারণ মানুষ আস্থা রেখেছেন। যদি কংগ্রেসকে সত্যিই মানুষ পুরোপুরি চাইতো, তাহলে বিজেপির অস্বিত্ব থাকতো না।
সূত্রের খবর, মঙ্গলবার রাতে কংগ্রেস নেতা কমলনাথ নিজে ফোনে যোগাযোগ করেন মায়াবতীকে। মায়াবতীও ইতিবাচক ইঙ্গিত দিয়েছিলেন।
উত্তর প্রদেশের দলিত নেত্রী মায়াবতীর উত্তর ভারতের গ্রামাঞ্চলে বরাবরই গ্রহণযোগ্যতা এবং জনসমর্থন রয়েছে। কংগ্রেস তা আগেই অনুধাবণ করতে পেরেছিল। তবে আসন সমঝোতা নিয়ে মায়াবতীর সঙ্গে কংগ্রেসের মতপার্থক্যের জেরে জোট গড়া অনিশ্চিত হয়ে যায়। সোমবার দিল্লিতে বিজেপি বিরোধী দলগুলির বৈঠকেও যোগ দেননি মায়াবতী।

Comments
Loading...