১৩ মে, বুধবার থেকে কলকাতায় ১৫ টি রুটে চলবে বাস, মিলবে অ্যাপ ক্যাবও, আপাতত পরিবহণ ব্যবস্থা শর্তসাপেক্ষ, জানালেন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী

১৩ মে, বুধবার থেকে কলকাতায় শর্তসাপেক্ষে চালু হচ্ছে সরকারি বাস ও অ্যাপ ক্যাব পরিষেবা। তবে ‘কনটেইনমেন্ট জোন’-এ এই পরিবহণ পরিষেবা পাওয়া যাবে না। এমনটাই জানিয়েছে রাজ্য পরিবহণ দফতর।
প্রায় দেড়মাসের লকডাউনের মধ্যে বুধবার থেকে কলকাতার ১৫ টি রুটে বাস চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার। এর মধ্যে হাওড়া-নিউটাউন (এস ১২), হাওড়া-ঠাকুরপুকুর (এস ১২ ডি), হাওড়া-কামালগাজি (এস ২৪), হাওড়া-গড়িয়া (এস ৭ এবং এস ৫), হাওড়া-বারুইপুর (সি ২৬), বারাসত-গড়িয়া (এস ৩৭), ডানলপ-বালিগঞ্জ (এস ৯এ), জোকা-বারাসত (সি৮), উল্টোডাঙা-সল্টলেক (এস টি ৭), এসপ্ল্যানেড-আমতলা (সি ৩৭), যাদবপুর-করুণাময়ী (এস ৯) এবং করুণাময়ী (টালিগঞ্জ)-নিউটাউন (এস টি ৬) রুটের বাসগুলি চলবে। এক একটি বাসে ২০ জনের বেশি যাত্রী নেওয়া যাবে না। তবে সবার জন্য এই পরিবহণের সুবিধা নয়।
রাজ্যের পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী জানান, যাঁরা করোনাভাইরাস মোকাবিলার কাজে যুক্ত রয়েছেন, যাঁরা জরুরি পরিষেবা দিচ্ছেন তাঁরাই কেবল বাসে যেতে পারবেন। এছাড়াও রোগীদের ছাড়পত্র রয়েছে। যাঁরা কেমোথেরাপি বা ডায়ালিসিস ইত্যাদি করতে যাচ্ছেন, তাঁরাও বাসে উঠতে পারবেন। রোগীর সঙ্গে একজন আত্মীয় বা বন্ধু থাকতে পারবেন।
এছাড়া শর্তসাপেক্ষে অ্যাব নির্ভর ক্যাব চালানোরও অনুমতি দেওয়া হচ্ছে বলে জানান শুভেন্দু অধিকারী। পরিবহণ দফতরের এক নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, কনটেইনমেন্ট জোন ছাড়া কলকাতা মেট্রোপলিটন অঞ্চল, বিধাননগর এলাকা, বারাকপুর এবং হাওড়ার মধ্যে অ্যাপ ক্যাব চালানো যাবে। তবে করোনা সংক্রমণ রোধে তাতেও বিধিনিষেধ থাকছে। যেমন, চালক ছাড়া অ্যাপ ক্যাবে সর্বাধিক দু’জন যাত্রী বসতে পারবেন এবং তাঁদের পিছনের আসনে বসতে হবে। চালকের পাশের আসন ফাঁকা রাখতে হবে। যাত্রীদের ক্ষেত্রে ই-পাস থাকা বাধ্যতামূলক। সঙ্গে প্রয়োজনীয় নথিপত্রও রাখতে হবে। পাশাপাশি, ক্যাবে হ্যান্ড স্যানিটাইজার রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে এবং চালককে অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

Comments
Loading...