২৯ শে ডিসেম্বর থেকে বদলে যাচ্ছে কেবল টিভির রেট চার্ট, দামী হচ্ছে পে-চ্যানেল দেখার খরচ

আগামী ২৯ শে ডিসেম্বর থেকে বাড়ছে টেলিভিশনে কেবল চ্যানেল দেখার খরচ। ফ্রি বা পে-চ্যানেল দেখার জন্য ‘নেটওয়ার্ক ক্যাপাসিটি’ বাবদ নয়া দাম ধার্য করে তা ঘোষণা করেছে টেলিকম রেগুলেটরি অথরিটি অব ইন্ডিয়া (ট্রাই)। এই নয়া নিয়মে প্যাকেজের জমানা শেষ হতে চলেছে। এবার চ্যানেল টু চ্যানেল ভিউ। অর্থাৎ, যে চ্যানেল গ্রাহক দেখতে চান, শুধুমাত্র তারই টাকা দেবেন তিনি। একটি চ্যানেল দেখতে গেলে একাধিক চ্যানেলের দাম দিতে হবে না। ট্রাই দাবি করেছে, ব্যবসায়িক স্বচ্ছতা এবং গ্রাহকদের সুবিধার কথা ভেবেই নেওয়া হয়েছে এই সিদ্ধান্ত।
অন্যদিকে,দর্শকদের আশঙ্কা, পে-চ্যানেলের সংখ্যা একটু বাড়লেই টিভি দেখার খরচ অনেকটা বাড়বে এর ফলে। কারণ, বিভিন্ন ধরনের ‘পে চ্যানেল’ দেখতে চাইলে বাড়বে খরচ।
নয়া নিয়মে পে চ্যানেলের দাম ধার্য হয়েছে ৩৪ পয়সা থেকে ১৯ টাকার মধ্যে। ট্রাই যুক্তি দিয়েছে, চ্যানেলগুলি যে দাম চাইছে, তা এমআরপি। অর্থাৎ, এর উপরে কেউ উঠতে পারবে না। কিন্তু দাম কমাতে তো কোনও অসুবিধা নেই। একই যুক্তিতে ফ্রি টু এয়ার চ্যানেলের নেটওয়ার্ক ফি’ও কমানো যায় বলে দাবি ‘ট্রাই’এর। যদি কেবল সংস্থাগুলি চায়, তাহলে সেই খরচ কমিয়ে দেওয়ার স্বাধীনতাও তাদের থাকছে। তা নিয়ে দর কষাকষি করতে পারেন দর্শক। অন্যদিকে, চ্যানেলের তরফে যে দাম ঘোষণা করা হয়েছে, সেই দামও কমিয়ে দিতে পারে কেবল সংস্থাগুলি।
ট্রাইয়ের এই সিদ্ধান্তে ক্ষুদ্ধ কেবল অপারেটর এবং এমএসও’রা। তাদের অভিযোগ, যে নিয়ম সামনে আসতে চলেছে, তাতে তাদের লাভের অঙ্ক তলানিতে এসে ঠেকবে। দর্শককে আর্থিক সুরাহা দিতে গেলে বন্ধ করে দিতে হবে ব্যবসা।
যে ‘বেস প্যাকেজের’ জন্য গ্রাহককে কর বাদে দিতে হত ২৬০ টাকা তা গিয়ে দাঁড়াবে প্রায় ৪০০ টাকায়। খরচ বাড়বে প্রিমিয়াম প্যাকেজের ক্ষেত্রেও। ১৫৫ টাকায় মিলবে ১০০ টি ‘ফ্রি টু এয়ার’ চ্যানেল। তবে সেই তালিকায় থাকবে না অধিকাংশ জনপ্রিয় চ্যানেল। তাই এখন ভেবেচিন্তে গ্রাহককে ঠিক করতে হবে তাঁদের পছন্দের চ্যানেলের লিস্ট।

Comments
Loading...