নির্ভয়া ধর্ষকদের ফাঁসি ১ ফেব্রুয়ারি, মহিলাদের ওপর অত্যাচারের ঘটনাতেই দেশে মৃত্যুদণ্ড সবচেয়ে বেশি

দিল্লির নির্ভয়া কাণ্ডে দোষী সাব্যস্ত ধর্ষকের ইতিমধ্যেই ফাঁসির সাজা দিয়েছে আদালত। সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী ১ ফেব্রুয়ারি ভোর ৬ টায় তাদের ফাঁসি হওয়ার কথা। পাঁচ বছর পর এই প্রথম দেশে কোনও ফাঁসির সাজা কার্যকর হতে চলেছে। ধর্ষণ করে খুনের মতো জঘন্য অপরাধে একসঙ্গে ৪ জনকে ফাঁসি দেওয়ার বিষয়টিও অভূতপূর্ব বলেই মনে করা হচ্ছে।
তথ্য বলছে, ২০১৮ সালে দেশের বিভিন্ন আদালতে মোট ১৮৬ জনকে মৃত্যুদণ্ডের নির্দেশ দেওয়া হয়। যা গত ২১ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ। ২০১৯ সালে ১০২ জনকে মৃত্যুদণ্ডের নির্দেশ দিয়েছে বিভিন্ন আদালত। মহিলাদের উপর যৌন অত্যাচারের জন্য ফাঁসির সাজা দেওয়ার নির্দেশের প্রবণতাও বেড়েছে দেশের বিভিন্ন আদালতে।
তবে এই বিষয়টি নিয়ে কিছুটা বিতর্ক রয়েছে। অনেকেই মনে করছেন ধর্ষকদের মৃত্যুদণ্ড দিলেই এই জঘন্য অপরাধ কমে যাবে তা অন্তত বলা যায় না। কারণ তথ্য বলছে, ধর্ষণ করে খুনের ঘটনা ২০১৭ সালের তুলনায় ২০১৮ সালে বেশ কিছুটা বেড়েছে। ২০১৭ সালে যেখানে ধর্ষণ করে খুনের ঘটনা ঘটেছিল ২২৩ টি। সেখানে ২০১৮ সালে তা বেড়ে হয় ২৯৪। সার্বিকভাবে মহিলাদের উপর অত্যাচারের ৩২ হাজার ৫৫৭ টি অভিযোগ দায়ের হয়েছিল ২০১৭ সালে। ২০১৮ সালে তা বেড়ে হয়েছে ৩৩ হাজার ৩৫৬ টি।
ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ড ব্যুরোর তথ্য বলছে, ২০১৮ সাল পর্যন্ত দেশে ৪০২ জনের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর হয়েছে। দেশে সব থেকে বেশি মৃত্যুদণ্ড হয়েছে মহারাষ্ট্রে, ৭৬ টি। উত্তরপ্রদেশে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছে ৪৪ জনকে এবং মধ্যপ্রদেশে ৪০ জনকে।
তবে তথ্য বলছে ধর্ষণ করে খুনের ঘটনার বিচার প্রক্রিয়া অন্যান্য অপরাধের তুলনায় তুলনামূলক ভাবে দ্রুত শেষ হচ্ছে দেশে। যা দীর্ঘ বিচার প্রক্রিয়ার মাঝে অবশ্যই কিছুটা আশা যোগায়।

 

Comments
Loading...