কলকাতায় কর্মরত আইআরএস অফিসারের বিরুদ্ধে এফআইআর সিবিআইয়ের, নাম-বয়স ভাঁড়িয়ে ইউপিএসসি পাশের অভিযোগ

নাম ও বয়স ভাঁড়িয়ে এবং নকল শংসাপত্র দেখিয়ে ইউপিএসসি পরীক্ষায় বসার অভিযোগে কলকাতায় কর্মরত এক আইআরএস অফিসারের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করল সিবিআই।
গত ১১ ই অক্টোবর ইংরেজি দৈনিক দ্য হিন্দুতে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন অনুযায়ী, নভিত কুমার ওরফে রাজেশকুমার শর্মা নামে ২০০৮-ব্যাচের ইন্ডিয়ান রেভেনিউ সার্ভিস (আইআরএস) অফিসারের বিরুদ্ধে অভিযোগ, ইউপিএসসি পরীক্ষায় বসা থেকে চাকরিতে যোগ দেওয়া, পুরোটাই তিনি নাম ভাঁড়িয়ে এবং নকল সার্টিফিকেট দিয়ে করেছেন। বর্তমানে পূর্ব কলকাতা জোনের সিজিএসটি ও কেন্দ্রীয় শুল্ক বিভাগের ডেপুটি কমিশনারের পদে রয়েছেন বিহারের পশ্চিম চম্পারণের বাসিন্দা ওই আইআরএস অফিসার।
এফআইআরে সিবিআই জানিয়েছে, ২০১৭ সালের ১৭ ই অক্টোবর ডিরেক্টরেট জেনারেল অফ ভিজিলেন্সের একটি অভিযোগের প্রেক্ষিতে নভিত কুমারের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করা হয়। অভিযুক্ত নভীত কুমার ২০০৭ সালে ইউপিএসসি পরীক্ষায় পাশ করেন। তাঁর বাবার নাম জয়নারায়ণ শর্মা বলে উল্লেখ করেন তিনি। অভিযুক্তের শিক্ষাগত যোগ্যতায় দেখানো হয়েছে, বিহার বিদ্যালয় পরীক্ষা সমিতির অধীনে ১৯৯৬ সালে দশম শ্রেণি পাশ করেন তিনি। একই বোর্ড থেকে ২০০৩ সালে দ্বাদশ শ্রেণি পাশ করেন। এরপর বাবাসাহেব আম্বেদকর বিহার ইউনিভার্সিটি থেকে ২০০৮ সালে স্নাতক হন। সেখানে তাঁর জন্ম তারিখ দেওয়া ছিল ১৯৮০ সালের ১৫ ই জুন। কিন্তু সিবিআই তদন্তে উঠে এসেছে, নভিত কুমারের দেওয়া একই ঠিকানায় রাজেশকুমার শর্মা নামে এক ব্যক্তি থাকেন। তাঁর বাবার নামও জয়নারায়ণ শর্মা। সিবিআই তদন্তে দাবি করা হয়েছে নভিত কুমার ও রাজেশকুমার শর্মা আসলে একই ব্যক্তি। বিহারের জওহর নবোদয় বিদ্যালয় (বেতিয়া) থেকে ১৯৯১ সালে দশম শ্রেণি পাশ করেন রাজেশকুমার শর্মা। আর ১৯৯৩ সালে দ্বাদশ শ্রেণি পাশ করেন। সিবিআইয়ের অভিযোগ, ইউপিএসসি পরীক্ষায় বসতে বয়সের উর্ধ্বসীমা পেরিয়ে যাওয়ার জন্যই নাম বদল করে শিক্ষাগত যোগ্যতার ভুয়ো শংসাপত্র যোগাড় করেন অভিযুক্ত রাজেশকুমার শর্মা।
ইউপিএসসির নিয়ম অনুসারে কোনও স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক হলেই পরীক্ষায় বসতে পারবেন। এবং ইউপিএসসির মেইনস পরীক্ষায় বসার সময় প্রার্থীকে গ্র্যাজুয়েট হওয়ার প্রমাণপত্র পেশ করতে হয়। সিবিআইয়ের অভিযোগ, বয়স ও যোগ্যতা লুকিয়ে রাখার জন্যই ভুয়ো নাম ও শিক্ষাগত যোগ্যতার শংসাপত্র দিয়েছিলেন অভিযুক্ত আইআরএস অফিসার। এমনকী ইউপিএসসি কর্তৃপক্ষকে বয়সের শংসাপত্র ও দশম শ্রেণি পাশের শংসাপত্রও দেননি অভিযুক্ত নভিত কুমার, বলে সিবিআইয়ের দায়ের করা এফআইআরে উল্লেখ রয়েছে।

Comments
Loading...