ঋণখেলাপী মেহুল চোকসি, নীরব মোদীর মামলায় তদন্তকারী অফিসারসহ ২০ জনকে হঠাৎ বদলি, বিতর্ক

২৪ শে জানুয়ারি ৩ সদস্যের কমিটি নতুন সিবিআই অধিকর্তা নিয়োগের মিটিংয়ে বসবে, আর তার ঠিক দু’দিন আগেই ২০ জন অফিসারকে বদলির নির্দেশ পাঠালেন সিবিআই-এর অন্তর্বর্তীকালীন ডিরেক্টর এম নাগেশ্বর রাও। ওই বদলি হওয়া অফিসারদের মধ্যে রয়েছেন ঋণখেলাপী দুই শিল্পপতি নীরব মোদি ও মেহুল চোকসির বিরুদ্ধে মামলার তদন্তকারী অফিসার এস কে নায়ার। তাঁকে মুম্বই অ্যান্টি কোরাপশন ব্যুরোতে বদলি করা হয়েছে।
প্রসঙ্গত, সোমবারই নীরব মোদির সঙ্গে প্রায় ১৩ হাজার কোটি টাকা ব্যাঙ্ক প্রতারণা মামলায় অভিযুক্ত মহুল চোকসি ভারতের নাগরিকত্ব ত্যাগ করেন। অ্যান্টিগুয়ায় ভারতীয় হাই কমিশনে নিজের ভারতীয় পাসপোর্ট সমর্পন করেন মেহুল চোকসি। তদন্তের জন্য ওই গয়না ব্যবসায়ীকে যাতে আর ভারতে ফিরতে না হয় তাই তাঁর এমন পদক্ষেপ বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল। এই অবস্থায় কেন মেহুল চোকসি এবং নীরব মোদীর বিরুদ্ধে মূল তদন্তকারী অফিসারকে বদলি করা হল, তা নিয়ে স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠছে। কারণ, যিনি এই বদলি করলেন সেই নাগেশ্বর রাওয়ের এই পদে বসার বৈধতাকেই চ্যালেঞ্জ করে মামলা হয়েছে সুপ্রিম কোর্টে।
অন্যদিকে, চেন্নাই পুলিশের সুপারিন্টেডেন্ট এ সর্বানন, যিনি স্টারলাইট আন্দোলন কেসের তদন্তভার নিয়েছিলেন তাঁকে বসানো হল এস কে নায়ারের স্থানে। টুজি স্পেক্ট্রাম কেলেঙ্কারি কেসে তদন্তকারী অফিসার বিবেক প্রিয়দর্শীকেও বদলির নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।
গত ২৩ অক্টোবর মাঝরাতে তৎকালীন সিবিআই অধিকর্তা অলোক ভার্মাকে ছুটিতে পাঠানোর পর এম নাগেশ্বর রাওকে অন্তর্বর্তীকালীন অধিকর্তার পদে বহাল করে কেন্দ্র। কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে মামলা করেন অলোক ভার্মা। এরপর শীর্ষ আদালতের নির্দেশে নিজের পদ ফিরে পেয়ে বেশ কয়েকজন অফিসারকে বদলির নির্দেশ দেন তিনি। কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের কমিটির সিদ্ধান্তে অলোক ভার্মাকে ফের সিবিআই অধিকর্তার পদ থেকে সরানো হয়। তাঁর জায়গায় দ্বিতীয়বারের জন্য নাগেশ্বর রাওকে অন্তর্বর্তীকালীন সিবিআই ডিরেক্টর করা হয়। এরপরে ঠিক হয়, ২৪ শে জানুয়ারি নতুন সিবিআই অধিকর্তা কে হবেন, তা নিয়ে তিন সদস্যের কমিটির বৈঠক হবে। তার ঠিক দু’দিন আগেই অন্তর্বর্তীকালীন সিবিআই ডিরেক্টর ২০ জন অফিসারকে বদলির নির্দেশ দিলেন।

Comments
Loading...