অরণ্যে উচ্ছেদ: সুপ্রিম-নির্দেশে স্থগিতাদেশ চেয়ে আদালতে কেন্দ্র, বৃহস্পতিবার শুনানি

পাট্টার আবেদন খারিজ হওয়া আদিবাসী ও অন্যান্য অরণ্যবাসীদের উচ্ছেদ করার সুপ্রিম কোর্টের ১৩ ই ফেব্রুয়ারির নির্দেশে স্থগিতাদেশ চেয়ে আবেদন কেন্দ্র ও গুজরাত সরকারের। আবেদন গ্রহণ করে বৃহস্পতিবার শুনানি হবে বলে জানিয়েছে বিচারপতি অরুণ মিশ্র ও বিচারপতি নবীন সিনহার বেঞ্চ।
গত ১৩ ই ফেব্রুয়ারি বিচারপতি অরুণ মিশ্র, বিচারপতি নবীন সিনহা ও বিচারপতি ইন্দিরা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বেঞ্চ নির্দেশ দেয়, অরণ্যের অধিকার আইন অনুযায়ী, জঙ্গলে বসবাসকারী আদিবাসী ও অন্যান্য বসবাসকারীদের মধ্যে যাদের পাট্টার আবেদন খারিজ হয়ে গিয়েছে তাদের উচ্ছেদ করতে হবে। আদালতে কেন্দ্রের আইনজীবীর ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তোলে বিরোধীরা। বৃহস্পতিবারের মধ্যে অন্ধ্র প্রদেশ, অসম, ছত্তিশগড়, ঝাড়খণ্ড, কর্ণাটক, কেরল, মধ্য প্রদেশ, মহারাষ্ট্র, ওড়িষা, রাজস্থান, তামিলনাড়ু, তেলেঙ্গানা, ত্রিপুরা, উত্তরাখণ্ড, উত্তর প্রদেশ এবং পশ্চিমবঙ্গ- এই ১৬টি রাজ্যের মুখ্য সচিবদের আদালতকে জানাতে হবে কেন পাট্টা খারিজ হওয়া আদিবাসী এবং অন্যান্য অরণ্যবাসীদের উচ্ছেদ প্রক্রিয়া থমকে আছে।
তথ্য অনুযায়ী, ভারতের ৪২ লক্ষ ১৯ হাজার আদিবাসী ও অন্যান্য অরণ্যবাসীদের মধ্যে ১৮ লক্ষ ৮৯ হাজার মানুষের দাবি গ্রাহ্য করা হয়েছে। অর্থাৎ, সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে ২৩ লক্ষ ৩০ হাজার আদিবাসী ও অন্যান্য অরণ্যবাসী অস্তিত্বের সংকটে পড়েছেন। এদের মধ্যে পাট্টার আবেদন খারিজের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি মধ্যপ্রদেশে। প্রায় সাড়ে তিন লক্ষ অরণ্যবাসীর পাট্টার আবেদন খারিজ হয়েছে সে রাজ্যে। এরপরই রয়েছে ওড়িষা, সেখানে প্রায় ১.৫ লক্ষ মানুষের পাট্টার আবেদন খারিজ হয়েছে। আর উত্তরাখণ্ডে সংখ্যাটা সবচেয়ে কম, মাত্র ৫১।

 

Comments
Loading...