উপেন্দ্র খুশওয়ার পর এবার বিহারে বিজেপি-নীতীশ জোট ছাড়ার ইঙ্গিত রামবিলাস পাসওয়ান পুত্র চিরাগের

বিহারে ‘সম্মানজনক’ আসন সমঝোতায় না আসায় সম্প্রতি এনডিএ জোট ছেড়েছে রাষ্ট্রীয় লোক সমতা পার্টি (আরএলএসপি)। জোট থেকে সরে এসে আরএলএসপি প্রধান উপেন্দ্র খুশওয়া বিজেপি ও নীতীশ কুমারের দিকে আঙুল তুলে ইস্তফা দিয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা থেকেও। বিজেপি সব আঞ্চলিক দলকে ধ্বংস করতে চায় বলে বুধবারও অভিযোগ করেছেন উপেন্দ্র খুশওয়া।
এবার, বিজেপি জোট ছাড়ার ইঙ্গিত দিলেন বিহারের অন্য এক এনডিএ শরিক লোক জনশক্তি পার্টি প্রধান চিরাগ পাসওয়ান। বিহারে বিজেপি ও জনতা দল ইউনাইটেড (জেডিইউ) প্রধান নীতীশ কুমারের ফিফটি-ফিফটি আসন সমঝোতার ইঙ্গিত বুঝেই রামবিলাস পাসওয়ানের পুত্র বিজেপিকে বার্তা দিলেন বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।
মঙ্গলবার এলজিপি প্রধান চিরাগ পাসওয়ান এক ট্যুইট বার্তায় জানান, বারবার আসন সমঝোতা নিয়ে বিজেপি নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করতে চাইলেও এখনও পর্যন্ত কোনও সুরাহা হল না। এ নিয়ে তিনি ক্ষুব্ধ। তাঁর ট্যুইটের পরিপ্রেক্ষিতে লালু পুত্র তেজস্বী যাদব ও সদ্য বিজেপি জোট ছেড়ে আসা উপেন্দ্র খুশওয়া চিরাগ পাসওয়ানকে তাঁদের পাশে চাইছেন। চিরাগের ট্যুইটের পরিপ্রেক্ষিতে তেজস্বী যাদব পালটা ট্যুইট করেন, ‘পাসওয়ানজী মহাগাটবন্ধনে আপনাকে স্বাগত।’
লোকসভা নির্বাচনের বাকি আর কয়েকটা মাস। এখনও পর্যন্ত বিহারে জোট দলগুলির সঙ্গে আসন বন্টন নিয়ে কোনও সিদ্ধান্তে আসেনি বিজেপি। তবে, বিহারের মুখ্যমন্ত্রীকে পাশে নিয়ে বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ সম্প্রতি এক সাংবাদিক বৈঠকে ঘোষণা করেন, নীতীশ ও বিজেপি সমান আসন পাবে লোকসভায়। ছোট দলগুলিকে তাদের প্রাপ্য আসনই দেওয়া হবে।
২০১৪ সালের নির্বাচনের তুলনায় এবার বেশি সংখ্যক আসনের প্রত্যাশা করেছিলেন উপেন্দ্র খুশওয়া ও চিরাগ পাসওয়ানরা। কিন্তু নীতীশ ও অমিতের বক্তব্যে তেমন কোনও ইঙ্গিত না পাওয়ায় ক্ষুব্ধ হন তাঁরা।
এর আগে বিজেপি ও নীতীশের ভূমিকায় যে তিনি খুশি নন তা একাধিকবার প্রকাশ করেছেন চিরাগ। কিন্তু তাঁদের তরফে কোনও পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। পাশাপাশি, সম্প্রতি মোদী সরকারের মন্দির ইস্যু ও বিভিন্ন জননীতি নিয়েও উষ্মা প্রকাশ করেন চিরাগ। আরএলএসপির পর বিহারে আবার এক জোট সঙ্গীকে হারানোর আভাস পাচ্ছে বিজেপি-নীতিশ।

Comments
Loading...