মহারাষ্ট্রের জনসভায় মোদীর মন্তব্যে বিধিভঙ্গ হয়নি, জানিয়ে দিল নির্বাচন কমিশন

নরেন্দ্র মোদীকে ক্লিন চিট দিল নির্বাচন কমিশন। কেরালার ওয়েনাড়ে কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী প্রার্থী হওয়ায় হিন্দুত্বের মর্যাদা ক্ষুণ্ণ হয়েছে বলে মহারাষ্ট্রের ওয়ার্ধার জনসভায় যে দাবি করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, তা নির্বাচনী বিধি লঙ্ঘন করেনি বলে জানিয়ে দিল নির্বাচন কমিশন। লোকসভা ভোট চলাকালীন নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে একাধিক বিধিভঙ্গের অভিযোগ তুলেছে বিরোধীরা এবং তা নিয়ে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগও জানানো হয়েছে। নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে এই প্রথম তেমন কোনও অভিযোগের প্রতিক্রিয়া সরাসরি জানানো হল।

ঘটনার সূত্রপাত গত ১ লা এপ্রিল। মহারাষ্ট্রের ওয়ার্ধার একটি জনসভা থেকে নরেন্দ্র মোদী হিন্দুত্বকে অপমান করার জন্য সরাসরি তোপ দাগেন কংগ্রেসের বিরুদ্ধে। তিনি বলেছিলেন, ‘পরিস্থিতি এমনই যে কংগ্রেস নেতারা এখন সংখ্যাগুরু (হিন্দু) অধ্যুষিত এলাকা থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে ভয় পাচ্ছেন। তাই তাদের এখন এমন জায়গায় দাঁড়াতে হচ্ছে যেখানে সংখ্যাগুরুরাই সংখ্যালঘু’।

এই মন্তব্যের পরই বিরোধী কমিশনে মোদীর বিরুদ্ধে বিধিভঙ্গের অভিযোগ দায়ের করে। অভিযোগ দায়েরের প্রায় এক মাস বাদে, চতুর্থ দফা ভোটের পর অবশেষে সিদ্ধান্ত জানাল নির্বাচন কমিশন। এদিকে প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে সিদ্ধান্ত নেওয়ার প্রশ্নে কমিশনের দীর্ঘসূত্রিতা নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন কংগ্রেস নেত্রী সুস্মিতা দেব। সেই মামলায় কমিশনের কাছে দু’দিনের মধ্যে জবাব তলব করেছে শীর্ষ আদালত।

Comments
Loading...